প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

একনেকে ২৪ হাজার ৭৪১ কোটি টাকার ২৪ প্রকল্প অনুমোদন

সাইদ রিপন: জরুরী ভিত্তিতে রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় মাল্টি-সেক্টর প্রকল্পসহ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ২৪টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২৪ হাজার ৭৪০ কোটি ৪১ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে দেয়া হবে ১৯ হাজার ৩৬১ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। সংশ্লিষ্ট সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে ৩০৬ কোটি ৪ লাখ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য হিসেবে ৫ হাজার ৭২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা পাওয়া যাবে।

বুধবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভায় প্রকল্পগুলো অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল সাংবাদিকদের বিস্তারিত জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, সাধারন অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, জরুরী ভিত্তিতে রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় মাল্টি-সেক্টর প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। কারণ রোহিঙ্গারা যতদিন কক্সবাজারে থাকবেন ততদিন তাদের ভালো-মন্দ দেখার দায়িত্ব আমাদের। আমরা তাদের ভালো থাকার ব্যবস্থা করছি। যখন তারা মিয়ানমারে ফেরত যাবেন তখন সেখানকার স্থানীয় বাংলাদেশিরা এসব অবকাঠামোর সুযোগ সুবিধা ভোগ করবেন। কেননা রোহিঙ্গাদের কারণে তারা অনেক কষ্ট ভোগ করছেন। বিশ্বব্যাংক ও এডিবিসহ অনেক সংস্থা ও দেশ প্রকল্পটিতে অনুদান দিচ্ছে। এ প্রকল্পটির জন্য মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১০ হাজার ৫৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকার দিবে সাড়ে ৯ কোটি টাকা। বাকি টাকা প্রকল্প সাহায্য হিসেবে পাওয়া যাবে। এটি চলতি বছরের ডিসেম্বর থেকে ২০২১ সালে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর।

মন্ত্রী বলেন, দেশের ডাক অধিদপ্তরের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বর্তমানে ডাকঘরগুলোতে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ই-কর্মাসসহ বিভিন্ন নতুন কার্যক্রম গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া শহীদ মুক্তি যোদ্ধাদের সমাধিস্থল সংরক্ষণের পাশাপাশি যেখানে গণহত্যা হয়েছে, সেখানকার গণকবরে যারা শায়িত আছেন তাদের নাম খুঁজে বের করে তালিকা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাদের নাম পাওয়া যাবেনা, সেখানে লিখতে হবে অজানা শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সব পুলিশের জন্য পর্যায়ক্রমে আবাসন ব্যবস্থা করতে হবে। পুলিশের জন্য প্রত্যেক জেলায় একটি করে ১০ তলা ভবন তৈরির নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। সম্পাদনা: সোহেল রহমান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ