প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সংলাপ কতটুকু আন্তরিক-ফলপ্রসূ হবে তা রায় থেকেই বুঝা যায়: মির্জা ফখরুল

শিহাবুল ইসলাম: বিএনপি’র চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা ৫ বছর থেকে বাড়িয়ে ১০ বছর করায় রায়ে প্রত্যাখ্যান করেছে দলটি। এবং দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আগামীকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংলাপ কতটুকু আন্তরিক ও ফলপ্রসূ হবে তা রায় থেকেই বুঝা যায়।

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সংবাদ সম্মেলনে রায়ের প্রতিক্রিয়া এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, বেগম জিয়ার সাজা বাড়ানো আমাদের হতাশ করেছেন, বিস্মিত করেছেন। এমন রায় নজীরবিহীন। আমাদের আইনজীবীর বার বার বলেছেন এই মামলা তিনি জড়িত নন। সরকার আদালতকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে তাদের ইচ্ছে মতো বিচার বিভাগকে ব্যবহার করেছে। এ রায় সরকারের ইচ্ছের প্রতিফলন। আমরা মনে করি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে রায় দেওয়া হয়েছে। এই রায়কে সম্পূর্ণ প্রত্যাক্ষাণ করছি। এবং জনগণই ভবিষ্যতে বিচার করবে যে বেগম খালেদা জিয়ার কি রায় হওয়া উচিত ছিল।

তিনি বলেন, এ থেকে প্রমাণিত হয়, সরকার একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চায় না। তারা বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে চায়। বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে চায়। এবং তাদের রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে দিতে চায়। এখানে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসা নয় ব্যক্তিগত প্রতিহিংসাও কাজ করছে। যে কারণে এই ধরনের রায় প্রদান করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে মির্জা ফখরুল বলেন, রায় থেকেই বুঝা যায় যে এই সংলাপে কতটুকু আন্তরিক এবং এই সংলাপ কতটুকু ফলপ্রসূ হবে। এ সম্পর্কে জনমনে যে প্রশ্ন বা জিজ্ঞাসা সেটা আলোচনায় আসবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব) হাফিজ, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ