প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সাজা বাতিল না হলে নির্বাচন করতে পারবেন না খালেদা জিয়া : অ্যাটর্নি জেনারেল

মহসীন কবির : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ৫ বছর বাড়িয়ে ১০ বছর করেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার ৩০ অক্টোবর এ রায়ের প্রতিক্রিয়ায় অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, সাজা বাতিল না হলে নির্বাচন করতে পারবেন না খালেদা জিয়া। মাহবুবে আলম বলেন, সংবিধান অনুযায়ী কোনো আসামি দুই বছর সাজা পেলেই তার কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সুযোগ নেই। সে হিসেবে খালেদার সাজা বাতিল না হলে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

মাহবুবে আলম বলেন, তিনটি আপিল খারিজ করেছেন আদালত। দুদকের সাজা বৃদ্ধির রিভিশনটি মঞ্জুর করেছেন। মঞ্জুর করে খালেদা জিয়ার সাজা পাঁচ বছর থেকে ১০ বছরে বৃদ্ধি করেছেন। হাইকোর্টে এতদিন যে শুনানি চলছিলো এ রায়ের মাধ্যমে তার পরিসমাপ্তি ঘটলো।  তিনি বলেন, এখানে দুই রকম ব্যাখ্যা। এক. সাজার কার্যকারিতা স্থগিত করা। দুই. সাজা বাতিল করা। এক্ষেত্রে আমার অভিমত হলো কেউ যদি নির্বাচন করতে চান, সাজাটা আদালতের মাধ্যমে বাতিল করতে হবে। সাময়িক স্থগিত থেকে নির্বাচন করা যাবে না বলে মনে করি।

যদি আপিল বিচারাধীন থাকে তাহলে কি হবে? এমন প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আপিল পেন্ডিং থাকলেও লাভ হবে না। স্থগিত হলে জেল থেকে মুক্তি পেতে পারেন। কিন্তু নির্বাচনে নয়। পলাতকদের বিষয়ে তিনি বলেন, যারা পলাতক আছে তারা আপিল করেননি। তাদের সম্পর্কে হাইকোর্টের বলার অবকাশ নেই। যারা সামনে আছেন তাদের সম্পর্কে হাইকোর্ট বলতে পারবেন। পলাতকদের সাজা বহাল থাকবে নিশ্চয়ই, যে পর্যন্ত হাইকোর্ট থেকে বাতিল না হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত। ওই রায়ের পর খালেদার সাজা বৃদ্ধি চেয়ে আপিল করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অন্যদিকে খালেদার পক্ষে খালাস চেয়ে আপিল করা হয়।