প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

২০১৬ সালে বিশ্বে ৬ লাখ শিশু মারা যায় বায়ুদূষণ সংক্রমণে!

সান্দ্রা নন্দিনী : ১৫ বছরের নিচে বয়সী ৯৩ শতাংশ শিশু বিষাক্ত বাতাসে শ^াস-প্রশ^াস নিচ্ছে। আর এই শিশুদের বেশিরভাগই চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছে। ওয়ার্ল্ড হেল্থ অর্গানাইজেশন-ডব্লিউএইচও থেকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদন মতে, ২০১৬ সালে ৬ লাখ শিশু মারা যায় যাদের মৃত্যুর কারণ ছিলো বায়ুদূষণ সংক্রান্ত সংক্রমণ। ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদের স্বাস্থ্যঝুঁকির মূল কারণ এই দূষিতবায়ু। শিশুদের ¯œায়ুবিক উন্নয়ন ও বোধশক্তি সৃষ্টিতে মারাত্মক প্রভাব ফেলে। যার কারণে, হাঁপানি ও ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকহারে বৃদ্ধি পায়। এছাড়া, দূষিতবায়ু শিশুদের মস্তিষ্কের বিকাশও প্রভাবিত করে।

ডব্লিউএইচও ডিরেক্টর জেনারেল ডক্টর টেড্রোস আডানোম এক বিবৃতিতে জানান, এটি একটি অমার্জনীয় বিষয়। কেননা, প্রত্যেক শিশুর অধিকার রয়েছে বিশুদ্ধ বাতাসে নিশ^াস নেওয়ার। এতে করে তাদের পূর্ণ মানসিক বিকাশ নিশ্চিত হবে।

এছাড়া, প্রতিবেদনটিতে ভারতের রাজধানী দিল্লিকে বায়ুদূষণের জন্য চরম স্থান বলে উল্লেখ করেছে। সেখানে বলা হয়, দিল্লিসহ ভারতের শিশুরা বায়ুদূষণের কারণে বিশেষ ঝুঁকির মুখে রয়েছে। একটি গবেষণায় দেখা যায়, দেশটির ১ হাজারেরও বেশি গর্ভবতী নারী বায়ুদূষণের কারণে হওয়া সংক্রমণের কারণে সময়ের আগে শিশু জন্ম এবং কম ওজনের শিশু জন্ম দিয়েছেন।

প্রতিবেদনে কয়েকটি সুপারিশ উল্লেখ করে বলা হয়, বায়ুদূষণরোধে বিশ^কে এক হয়ে এর নীতিতে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে হবে। জীবাশ্ম জ¦লানির ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে পুনর্নবায়নযোগ্য জ¦ালানি ব্যবহারের বিষয়েও ঐকমত্যে পৌঁছুতে হবে। এছাড়া, শিশুদের স্কুল ও খেলার জায়গা অবশ্যই ব্যস্ত সড়ক ও কারখানা থেকে দূরে স্থাপন করতে হবে। সিএনএন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ