প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাতীয় ঐক্য যখনই হয়েছে, বাংলাদেশে তখনই বিজয় এসেছে : মনসুর আহমেদ

সাজিয়া আক্তার : জাতীয় ঐক্য যখনই হয়েছে, বাংলাদেশে তখনই বিজয় এসেছে, যমুনা টেলিভিশনের রাজনীতি বিষয়ক টকশোতে এমনই মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ।

তিনি বলেছেন, আমরা জনগণের প্রতিনিধিত্ব করছি। ৫২, ৬৯, ৭০ বা ৭১ কিংবা ৯০ সালে যখনই স্বৈরাচারী আন্দোলন সৃষ্টি হয়েছে, জাতীয় ঐক্য তখনই বিজয় ছিনিয়ে এনেছে। কাজেই আমি আশা করি, সরকারের মধ্যে উপলব্ধি আসবে। সেই উপলব্ধির কারণেই জাতির সামনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বর্তমান সরকারকে চিঠি দিয়েছে ৭ দফা উল্লেখ করে। তার পরিপ্রেক্ষিতে আলোচনার জন্য যে আহ্বান জানানো হয়েছে তাতে সমাধানের পথ খুঁজে পাওয়া যেতে পারে।

মনসুর আহমেদ বলেন, জনগণের রাজনীতি যদি আমরা করে থাকি এবং জনগণের ভাষা যদি আমরা বুঝে থাকি, তাহলে জনগণই তার প্রতিদান দেবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উক্তি, জনগণ হচ্ছে দেশের মালিক। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই সংবিধানের প্রথম স্বাক্ষরকারী। আমরা যদি এটাকে শ্রদ্ধা করি, তাহলে ‘আমার ভোট আমি দেব, যাকে খুশি তাকে দেব’ সেই লক্ষ্যে আমাদের প্রণীত ৭ দফা। আশা করি আওয়ামী লীগ এবং তাদের শরিকদল এটা মেনে নেবেন।

তিনি বলেন, আমরা অবশ্যই এ দেশে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চাই। সেটা দলগত বা জোটগত যেকোনোভাবে হতে পারে। সেটা নির্ভর করবে পরিবেশের উপর। জনগণ ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচন বয়কট করেছে। বর্তমান সময়ে ২০১৪ সালের এই নির্বাচন জনগণ মেনে নেবেন না। সংলাপের মাধ্যমে আমরা যে দাবি করেছি সেই দাবিগুলো আমরা ঐকমত্যে পৌঁছাবো, দেশের স্বার্থে। এ দেশের মানুষ শান্তিপূর্ণ একটি অবস্থান চায়।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী সাহেব বলেছেন, এ দেশের মানুষ স্বস্তি ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের আগে সংলাপে বসেছিলেন ইয়াহিয়া খানের সাথে। সেখানে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলার মানুষের দাবি ছিল এক ব্যক্তির এক ভোট। এত বছর পরেও এখনো মানুষের দাবি সেই একই। আমার ভোট আমি দেব যাকে খুশি তাকে দেব, ২০০৬ সালে বর্তমান প্রধানন্ত্রী এই স্লোগানটি বলেছিলেন। যদি তার এটা স্মরণ থাকে, আমরা আশা করছি এখান থেকে তিনি সরবেন না।

সরকারি দলের অনেক রাজনীতিবিদ এবং আমরা যারা সংগ্রাম লড়াই করেছিলাম স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে, সেখানে তিন জোটের যে রূপ রেখা ছিল, পরবর্তীকালে ৩দফা হয়েছিল। আর সেই ২৩ দফার মধ্যেই ৭ দফা সন্নিবেশিত রয়েছে। ৭ দফা এটা নতুন কিছু না। বর্তমানে যারা সরকারে আছেন, তারাই একসময় এই দাবিগুলো জানিয়েছিলেন। এখন এই দাবিগুলো থেকে তারা সরে আসছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ