প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পৃথিবীর চারিপাশে রহস্যময় ধুলার মেঘ আবিষ্কৃত

আসিফুজ্জামান পৃথিল : কয়েক দশক ধরেই জ্যোর্তিবিজ্ঞানীদের মাঝে পৃথিবীর কক্ষপথে ধুলার মেঘ রয়েছে কি নেই সে নিয়ে বির্তর্ক ছিলো। কিন্তু সাম্প্রতিক গবেষণায় এ ধরণের ধুলার মেঘের স্পষ্ট প্রমাণ পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

এ রহস্যময় মেঘের নাম দেওয়া হয়েছে করডিলিউস্কি মেঘ। পৃথিবী এবং চাঁদের মাধ্যাকর্ষণ এলাকার মধ্যে এ ধরণের দুটি মেঘের স্তর আবিষ্কৃত হয়েছে। ১৯৫০ সালে এ মেঘের ধারণা প্রথম মিললেও এতদিন অকাট্য কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। হাঙ্গেরির ইয়টভোস লোরান্ড বিশ^বিদ্যালয়ের গবেষক দল সম্প্রতি নিজেদের চেষ্টায় এ মেঘের অস্তিত্ব প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। গবেষকদলটির নেতা জ্যোর্তিবিজ্ঞানী জুডিত স্লিজ বালোঘ এ বিষয়ে বলেন, ‘মহাকাশে খোঁজ পাওয়া কঠিন এমন দুটি বস্তুর একটি হলো করডিলিউস্কি মেঘ। তারা পৃথিবী এবং চাঁদের কাছাকাছি অবস্থান করলেও তাদের দেখা কঠিন। নানান কারণে জ্যোর্তিবিজ্ঞানীরা তাদের এড়িয়ে গেছেন। এটা নিশ্চিতভাবে প্রমানিত হয়েছে আমাদের চান্দ্রেয় প্রতিবেশি ছাড়্ও পৃথিবীর ধুলাময় উপগ্রহের মতো বস্তু রয়েছে।’

করডিলিউস্কি মেঘের মতো বস্তুগুলির অবস্থানকে লরেঞ্জ পয়েন্ট বলে অভিহিত করা হয়। এসব এলাকায় দুটো বিশাল মহাকর্ষ শক্তি সম্বলিত বস্তুর শক্তির মাঝে শূণ্যতা বিরাজ করে। অস্টাদশ শতাব্দিতে প্রথমবারের মতো লরেঞ্জ পয়েন্ট আবিষ্কার হয়। যে কোন বাস্তবসম্মত সিস্টেমে এরকম ৫টি পয়েন্ট বিদ্যমান থাকতে পারে। যেমন সূর্য-পৃথিবী সিস্টেম, সূর্য-চন্দ্র সিস্টেম সহ অন্যান্য সিস্টেম। পৃথিবী-চন্দ্র সিস্টেমে এরকম ৫টি পয়েন্টের দুট এল-৪ ও এল-৫। এগুলো ট্রোজান পয়েন্ট নামে পরিচিত। এগুলো ট্রোজান পয়েন্ট নামে পরিচিত। এর মাঝেই এই রহস্যময় ও ভৌতিক মেঘগুলো পাওয়া গেছে। সায়েন্স অ্যালার্ট

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ