প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বহুল আলোচিত দশম সংসদের সমাপ্তি
দু’বার সংবিধান সংশোধন, ১৯৩ বিল পাস

তরিকুল ইসলাম সুমন : বহুল আলোচিত দশম সংসদ শেষ হয়েছে সোমবার।এ সংসদে বিল পাস হয়েছে ১৯৩টি। সংসদে পাস ও উচ্চ আদালতে বাতিল হওয়া সংবিধানের ১৬তম সংশোধন ছিল এ যাবৎকালে হওয়া সংবিধানের ১৭টি সংশোধনের অন্যতম আলোচিত ঘটনা। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৫৩ সদস্যের নির্বাচিতও হওয়ার ঘটনাও আর একটি আলোচিত দিক।

সোমবার দশম সংসদের সমাপ্তির মাধ্যমে কার্যত একাদশ সংসদ নির্বাচনের কালগণনা শুরু হলো। সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের ৩ দফার (ক) উপদফা অনুযায়ী, মেয়াদ অবসানের কারণে সংসদ ভেঙ্গে যাওয়ার ক্ষেত্রে ভাঙ্গার পূর্ববর্তী নব্বই দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠান হবে। সেই হিসেবে একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দশম সংসদের অধিবেশন শেষ হয়েছে। তবে, কোনো বিশেষ কারণে সংসদ বসতে সংবিধান অনুযায়ী কোনো বাধা নেই।

২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি ছিল দশম সংসদের প্রথম দিন।এ সংসদের মোট অধিবেশ বসেছে ২৩টি, এর মধ্যে ৪১০ কার্যদিবস চলেছে। এতে ১৯৩টি বিল পাস হয়েছে। এর আগে নবম সংসদে ২৭১, অষ্টম সংসদে ১৮৫ এবং সপ্তম সংসদে ১৯১ বিল পাস হয়েছিল। দশম সংসদে পাস হওয়া কয়েকটি আলোচিত আইনের মধ্যে রয়েছে, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, সম্প্রচার আইন, সড়ক পরিহন আইন ও সরকারি চাকুরে আইন।

দশম সংসদের বেশির ভাগ সদস্য বিনা প্রতিদ্ব›দ্বীতায় নির্বাচিত হওয়ার মতো সমালোচনা যেমন আছে, তেমনি এই সংসদের একাধিক সংসদ সদস্য আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সংসদ সম্পর্কিত বিভিন্ন ফোরামে নেতৃত্ব দিয়ে দেশের সুনাম বৃদ্ধি করেছেন। এর মধ্যে ১৭৩টি দেশের সংসদ সদস্যদের সংগঠন ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ)-এর প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঢাকা-৯ আসনের সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী সরাসরি নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি আইপিইউয়ের দায়িত্ব পালন কালে বৃহৎ এই সংগঠনটির একটি বার্ষিক অনুষ্ঠান বাংলাদেশে আয়োজন করেছেন। অন্যদিকে ৫৬টি দেশের সংগঠন কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এসোসিয়েশনের (সিপিএ) নির্বাচনে ভোটে নির্বাচিত চেয়ারম্যান হন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনিও দায়িত্ব পালকালে বাংলাদেশে সিপিএ-এর একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অন্তত. বিশটি দেশের স্পিকারসহ শতাধিক সংসদ সদস্য অংশ নিয়েছিলেন।

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়া জাতীয় সংসদে বলেন, আমার দৃষ্টিতে দশম সংসদ একটি ফলপ্রসূ সংসদ। আমি ১৯৮৬ সালের পর থেকে সংসদে আছি, ওই সময়ের পর এবারের সংসদই সবচেয়ে প্রাণবন্ত কার্যক্রম চলেছে। তিনি বলেন, ২০০১ সালে সংসদে বিরোধীদলকে প্রায় কথা বলতেই দেওয়া হয়নি। প্রায় দুইশ আইন প্রণয়নসহ সার্বিক কার্যক্রম বিবেচনায় দশম সংসদ অন্ত্যন্ত সফল।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও অভিজ্ঞ পার্লামেন্টারিয়ান বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ সংসদ অধিবেশনে দশম সংসদের মূল্যায়ণ করতে গিয়ে বলেন, সরকার ও বিরোধীদলের অংশগ্রহণে দশম সংসদ সফল সংসদ হিসেবে কাজ চালিয়েছে। তিনি বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রের ইতিহাস হচ্ছে সরকার ও বিরোধীদলের অংশগ্রহণে আন্তরিক পরিবেশে জনগণের কল্যাণে কাজ করা। এ সংসদে সেটাই হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত