Skip to main content

৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কক্ষে আসতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

তরিকুল ইসলাম সুমন : শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানিয়েছেন, চলতি বছর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা ১ নভেম্বর শুরু হচ্ছে। দেশের ২হাজার ৯শ ৩টি কেন্দ্রে ২৬লাখ৭০হাজার ৩৩৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেবে। এপরীক্ষা নকলমুক্ত করার জন্য  সোমকার থেকে পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সোমবার শিক্ষামন্ত্রনালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তিনি। শিক্ষামন্ত্রী জানান, ২০১৮ সালের জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় ২লাখ ১ হাজার ৫১৩ জন পরীক্ষার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে, জেএসসি পরীক্ষায় ১লাখ ৭৭হাজার ৬৬ জন এবং জেডিস পরীক্ষায় ২৪হাজার ৪৪৭ জন পরীক্ষার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে, নতুন কেন্দ্র ৬৯ টি এবং নুতন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১হাজার ৪৯ টি। ২০১৮ সালের জেএসসি পরীক্ষায় অনিয়মিত পরীক্ষার্থী ২,৪৬,৩৫৩ জন ও জেডিসি পরীক্ষায় ৩৪,২৫১ জন। জেএসসি পরীক্ষায় বিশেষ পরীক্ষার্থী (এক, দুই ও তিন বিষয়ে অকৃতকার্য) ২লাখ ৩০হজার ৭৮৫ জন ও জেডিসি পরীক্ষায় ৩০হাজার ৫৪৮ জন। তিনি আরো বলেন, নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ৭ টি বিষয়ে ৬৫০ নম্বরের পরীক্ষা দিতে হবে। বাংলা ২য় পত্র এবং ইংরেজি ১ম/২য় পত্র ছাড়া সকল বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে হবে। নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্ম ও জীবনমূখী শিক্ষা এবং চারু ও কারুকলা, কৃষি শিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান, আরবি, সংস্কৃত, পালি বিষয়সমূহ এনসিটিবি এর নির্দেশনা অনুসারে ধারাবাহিক মূল্যায়ণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট পূর্বে পরীক্ষার্থীদেরকে পরীক্ষা কক্ষে প্রবেশ করতে হবে। তবে অনিবার্য কারণে কোন পরীক্ষার্থীকে এ সময়ের পরে হলে প্রবেশ করতে দিলে তার/তাদের নাম, রোল নম্বর, প্রবেশের সময়, সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে প্রতিবেদন দিতে হবে। শ্রবণ প্রতিবন্ধীসহ অন্যান্য প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত ২০ মিনিট সময় দেয়া হয়েছে। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী, সেরিব্রাল পলসিজনিত প্রতিবন্ধী এবং যাদের হাত নেই তাদের জন্য শ্রæতি লেখকের সুযোগ রাখা হয়েছে। প্রতিবন্ধী (অটিস্টিক, ডাউন সিনড্রোম, সেরিব্রালপলসি) পরীক্ষার্থীদের অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় বৃদ্ধিসহ শিক্ষক/অভিভাবক/সাহায্যকারীর বিশেষ সহায়তায় পরীক্ষা প্রদানের সুযোগ দেয়া হয়েছে। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে শিক্ষক, ছাত্র ও কর্মচারীদের মোবাইল, মোবাইল ফোনের সুবিধাসহ ঘড়ি, কলম এবং পরীক্ষা কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার নিষিদ্ধ, পরীক্ষা চলাকালীন ও এর আগে ও পরে পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কাজের সময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ও পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ব্যতীত অন্যদের প্রবেশ সম্পূর্ণরুপে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।