Skip to main content

ধর্মঘটে প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাবি শিক্ষার্থীরা

কায়েস চৌধুরী: দেশব্যাপী ৪৮ ঘণ্টার শ্রমিক ধর্মঘটের নামে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করার প্রতিবাদ জানিয়ে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত এই মানববন্ধনে মুখে কালি মেখে প্রতিবাদ জানায় শিক্ষার্থীরা। সমাজবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম বলেন, আন্দোলনের নামে সাধারণ মানুষ এবং শিক্ষার্থীদের ওপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে। এটা কোনও আন্দোলনের আচরণ হতে পারে না। এখন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা চলছে। শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষা দিতে যেতে পারছে না। পুরো দেশটা এখন অচলাবস্থায় পরিণত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থী আবদুল করিম বলেন, আজকে যখন সাধারণ মানুষ এবং শিক্ষার্থীরা শ্রমিকদের দ্বারা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে, তখন পুলিশ বাহিনী এবং হেলমেট বাহিনী নীরব ভূমিকা পালন করছে। ধর্মঘটের কারণে মৌলভীবাজারে শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আমরা বলতে চাই, এটি মৃত্যু নয়, হত্যা। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। এই অরাজকতাকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। সমাজবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আকরাম হোসেন বলেন, স্কুল ড্রেসে কালি কেন?। দাবি আদায়ের পরিপ্রেক্ষিতে শ্রমিকরা চাইলে একজন নারীকে লাঞ্ছনা করতে পারেন না। গতকাল আমরা যেধরনের দৃশ্য দেখতে পেয়েছি, তা খুবই নৃশংস। আমরা মনে করি রাষ্ট্রের একজন নাগরিক হিসেবে তারা আন্দোলন করতে পারে। কিন্তু তারা বিশৃঙ্খলা তৈরি করতে পারে না। এধরনের নির্যাতনের বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে আমরা নিন্দা জানাই। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে গতকাল রোববার থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। শ্রমিকদের আন্দোলনে নারী নির্যাতন, শিশুহত্যা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা তুলে ধরা হয়। এসময় তিনটি দাবির কথা জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। দাবিগুলো হলো- শিক্ষার্থীদের অবাধ চলাচল নিশ্চিত করতে হবে, আন্দোলনের নামে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি সৃষ্টি করা যাবে না এবং অ্যাম্বুলেন্সসহ অন্যান্য রোগী বহনকারী গাড়ি চলাচল করতে দিতে হবে।

অন্যান্য সংবাদ