প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরগুনায় অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসুচিতে লুটপাট

শাহ্ আলী, বরগুনা : বরগুনার বেতাগী উপজেলায় অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির (ইজিপিপি) ২য় পর্যায়ের বাস্তবায়নযোগ্য প্রকল্পের কাজ মাত্র ৫ দিনেই শেষ।

বর্তমান সরকারের বিশেষ প্রকল্প অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির নির্দেশনা অনুযায়ী ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এ প্রকল্পের অধীনে ২১ এপ্রিল ২০১৮ থেকে শুরু হয়ে মোট ৪০ দিন সময় সীমার মধ্যে অতি দরিদ্রদের জন্য কাজের সুযোগ তৈরি করে দেয়ার কথা ছিল। দৈনিক ৭ ঘণ্টা কাজের বিনিময়ে ২০০ টাকা হিসেবে এ প্রকল্পের জন্য বেতাগী উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে সর্বমোট ৫৫৬ জন অতিদরিদ্রের জন্য ৪৪ লাখ ৭৬ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ প্রকল্পকে ঘিরে বেতাগীতে পুকুর চুরির অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, ৪০ দিনের কাজ হয়েছে ১ থেকে সর্বোচ্চ ২০ দিন। বাকি দিনগুলোর কাজ না করিয়ে বিল তুলে নিয়েছেন প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্টজনরা। নির্ধারিত সময়সীমা অনুযায়ী কোথাও কাজ হয়নি যা হয়েছে লোক দেখানো দায়সারাভাবে ঠিকা চুক্তিতে। অধিকাংশ প্রকল্পে ঘুরে একই চিত্র পরিলক্ষিত হয়। এ ছাড়া এ সকল প্রকল্পের সিপিসিদের কাছ থেকে জানা যায়, প্রকল্পে বরাদ্দকৃত অর্থ হতে ১৫-২০ পার্সেন্ট করে কর্তন করে রেখেছে বেতাগী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার কাজিরাবাদ ইউনিয়নে ৮ নং ওয়ার্ডের বকুলতলী বিলের রহিমের বাড়ী থেকে কেতাব আলী মুন্সী বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা মেরামত প্রকল্পে কাজ করেছেন শ্রমিক লুৎফা, মুন্নী, আমেনা, হোসনেয়ারা। তাদের কাছ থেকে জানা যায়, এ প্রকল্পে কাজ হয়েছে মাত্র ৫ দিন। সিপিসি ইউপি সদস্য কামাল হোসেন এদেরকে জন প্রতি ১ হাজার টাকা মজুরী প্রদান করেন। হোসনাবাদ ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের আলী হোসেন বিশ্বাসের বাড়ীর পূর্ব পাশ হতে ফুলতলা খালের পাড় পর্যন্ত এ প্রকল্পে ১৮ জন শ্রমিক নিয়ে মাত্র ১০ দিন কাজ করেছেন জানান শ্রমিক আফজাল হোসেন, এবং বাকী প্রকল্প বাসাবাড়ী কাছেমের পূর্ব পাশ হতে বড় বাড়ীর সামনে পুল পর্যন্ত রাস্তা মেরামতের কাজ আদৌ হয়নি। বুড়ামজুমদার ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ করুনা ডাঙ্গার মাথার মফেজ সিকদারের জমি থেকে লতিফ সিকদারের বাড়ীর কালভার্ট পর্যন্ত কাজির খাল খনন প্রকল্পে বরাদ্দ ৩ লাখ ২২ হাজার টাকা। শ্রমিক সংখ্যা ৪০ জন।

এ প্রকল্পে কাজ করেছেন শ্রমিক সর্দার আবদুর রশীদ তার কাছ থেকে জানা যায়, ১২ জন শ্রমিক নিয়ে ১৫ দিন কাজ করেছেন (১ চেইন) ১’শ ফুট ৭ হাজার টাকা ঠিকা চুক্তিতে। তারা কাজ করেছেন মোট ২ হাজার ২’শ ফিট। মোকামিয় ইউনিয়নে বড় মোকামিয়া মদিনা মসজিদ থেকে মৃধা বাড়ীর জামে মসজিদ পর্যন্ত ইট সলিং রাস্তার পাশে মাটি দ্বারা মেরামত। এ প্রকল্পে বরাদ্দ ২ লাখ ৯০ হাজার টাকা। শ্রমিক সংখ্যা ৩৬ জন। এলাকার মুনসুর আলী হাওলাদার বলেন, এখানে ১০-১২ জন লেবার মাত্র ১ দিন কাজ করেছে।

এ ব্যাপারে বেতাগী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিব আহসান জানান, অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচীতে অনিয়মের ব্যাপারে আপনাদের কাছ থেকে শুনলাম, তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ