Skip to main content

সন্ত্রাসী হামলার শিকার দুই বোন নিরাপত্তা চায়

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : জনসাধারণের চলাচলের রাস্তা বন্ধের প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসী দিয়ে নারীদের ওপরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলেও মামলা নেয়নি পুলিশ। উল্টো হামলার শিকার নারীরা বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। সোমবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযাগ করেন আশুলিয়া এলাকার বাসিন্দা জেসমিন আক্তার। তিনি জানান, আশুলিয়া থানার জিরাবো এলাকায় কথিত হাবিব ইন্ডাষ্ট্রিয়াল পার্কের সামনের রাস্তা সরকারের একজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা সাইদুর রহমান জোর করে বন্ধ করে দেয়। গত ১৭ অক্টোবর সকালে বোন নাসরিন আক্তারকে নিয়ে তিনি পুরাতন ভবন মেরামতের কাজ দেখাশোনার জন্য হাবিব ইন্ডাষ্টিয়াল পার্কে গেটের সামনে যান। এ সময় পুর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সাইদুর রহমান, সালমান বেপারী, মজিবুর রহামন, বজলুর রহমান, আতিকুর রহামনসহ আরো ৫/৭জন সন্ত্রাসী লাঠি সোটা, লোহার রড, ধারালো চাপাতি নিয়ে হামলা চালায়। এসময় তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তবে তাদের কাছে থাকা নগদ টাকা ও শরীরের স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। ইন্ডাষ্ট্রিয়াল পুলিশের সহযোগিতায় তাদের ধামরাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে গত ২১ অক্টোবর ছাড়পত্র নিয়ে থানায় মামলা করতে গেলেও পুলিশ মামলা নেয়নি। পরে আদালতে তারা মামলা করেন। আদালত মামলাটি আশুলিয়া থানায় এজাহারভুক্ত হিসেবে গ্রহন করে আসামিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিলেও পুলিশ এখনো মামলা গ্রহণ করেনি। এদিকে সাইদুর রহমান ও তার লোকজন তাদের হত্যাসহ নানা হুমকি দিচ্ছে। এ অবস্থা থেকে রেহাই পেতে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের আইজি, র‌্যাবের ডিজিসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জেসমিন।

অন্যান্য সংবাদ