প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঐক্যফ্রন্টের ভবিষ্যৎ নেই: মেনন

বাংলা ট্রিবিউন : ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, ‘ঐক্যফ্রন্টের কোনও ভবিষ্যৎ নেই। তাদের সাত দফা দাবিও অযৌক্তিক। একইসঙ্গে তা অসাংবিধানিকও। ওই দাবি মেনে নেওয়ার কোনও সুযোগ নেই।’

রবিবার (২৮ অক্টোবর) বিকালে সাতক্ষীরার তালায় ওয়ার্কার্স পার্টির সম্মেলন পূর্ব উদ্বোধনী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘সংবিধান অনুসারে আগামী সংসদ নির্বাচন হবে। সংসদ ভেঙে দেওয়া বা প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের প্রশ্নই ওঠে না। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এসব দাবি তুলে তাদের নির্বাচনে আসার পথ বন্ধ করছে। তারা নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাইছে।’

সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা ছোট করার বিষয়টি সাংবিধানিক নয়। তারপরও প্রধানমন্ত্রী চাইলে সেটি করতে পারেন। এটা সম্পূর্ণ তার নিজের এখতিয়ার। গতবারের নির্বাচনে বিএনপিকে আনার জন্য প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রিসভা ছোট করেছিলেন। এবার তার আরও প্রয়োজন নেই।’

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কেবল সাংবাদিকদের জন্য প্রযোজ্য নয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাইবার ক্রাইম বন্ধে এ ধরনের আইন আছে। নির্বাচনের পর এ নিয়ে আরও ভাবা হবে।’ তিনি বলেন, ‘আমি নিশ্চয়তা দিয়ে বলতে পারি, আগামী নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসতে পারবে না।’

মেনন বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে গেছে। গত ১০ বছরে মানুষের জীবনযাত্রায় ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। ২০০৫ সালে আমাদের মাথা পিছু আয় ছিল ৫৪২ ডলার। আর এখন তা ১৭৫২ ডলারে পৌঁছেছে। দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘২০১১ সালে শেখ হাসিনা যখন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণা দেন, তখন বিএনপি তা নিয়ে হাসাহাসি করেছিল। তারা দেশের গ্রাম থেকে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো বন্ধ করে দিয়েছিল।’

আগামী দুই বছরের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে দাবি করে তিনি বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করবো। দেশের মানুষের দারিদ্র্য সীমা হ্রাস পেয়েছে। তবে সমাজে সমতার অভাব বেড়েছে, বৈষম্য বেড়েছে। দেশের মোট সম্পদের ৩৭ শতাংশ ভোগ করে এখন মাত্র ১০ শতাংশ মানুষ।’

তিনি বলেন, ‘আমার দল সমতাভিত্তিক আধুনিক বাংলাদেশ গড়তে চায়। যেখানে থাকবে না কোনও সাম্প্রদায়িক হানাহানি।

মেনন বলেন, ‘ড. কামাল হোসেন এখন বিএনপির নেতা। ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চ থেকে ঘোষণা দিয়ে ড. কামাল, আ স ম রব, মান্না শেখ হাসিনার সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামাতে চায়। এটা সহজ নয়। মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘আমি ও আমার দল কোনও দুর্নীতি করিনি। যারা দুর্নীতি করে তাদের কোনও আদর্শ নেই।’

তালা উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টি সম্পাদক প্রভাষক সরদার রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন– ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য দীপংকর সাহা দীপু, সাতক্ষীরা জেলা সম্পাদক উপাধ্যক্ষ মহিবুল্লাহ মোড়ল, সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক সাবীর হোসেন, উপাধ্যক্ষ ময়নুল ইসলাম, ফাহিমুল হক কিসলু, স্বপন কুমার শীল প্রমুখ।