প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকারের মদদেই গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাত্রীদের ওপর ‘বর্বর’ হামলা : শত নাগরিক

সাব্বির আহমেদ : ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে হামলার ঘটনার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ৫০১ জন বিশিষ্ট চিকিৎসক। এ ছাড়া গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে সশস্ত্র হামলায় ক্ষুব্ধ, উদ্বিগ্ন ও আতঙ্কিত বলে বিবৃতি দিয়েছে প্রফেসর এমাজউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন শত নাগরিক কমিটি। আজ রোববার ওই হামলার ঘটনায় পৃথক এ বিবৃতি দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ)সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কে এম আজিজুল হক স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ঢাকার আশুলিয়ায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে পিএইচএ ভবনে গত শনিবার কতিপয় সন্ত্রাসী গেইট ভাঙচুর করে ভেতরে প্রবেশ করে লুটপাট ও ছাত্রীদের ওপর বর্বর হামলা চালায়। জনবিচ্ছিন্ন সরকার ভোটের আগ মুহূর্তে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে প্রতিপক্ষকে দমনের অংশ হিসেবে এই নির্মম হামলা চালায়। ছাত্রীদের ওপর এই হামলা নারীর অধিকারের চরম লঙ্ঘন। হামলা পরবর্তী সরকারের নীরবতাই প্রমাণ করে তাদের মদদেই এই বর্বরতা। এই সন্ত্রাসী হামলাসহ দেশের জনগণের সকল মৌলিক অধিকারের বিষয়ে দেশের চিকিৎসক সমাজসহ সমগ্র জাতি আজ চরম উদ্বিগ্ন। আমরা চিকিৎসক সমাজ এই হামলায় জড়িত ব্যক্তিদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাচ্ছি।’

বিবৃতিদাতা ৫০১ চিকিৎসকের মধ্যে রয়েছেন— অধ্যাপক ডা. এ কে এম আজিজুল হক, অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, অধ্যাপক ডা. রফিকুল কবির লাবু, ডা. মো. আব্দুস সালাম, ডা. হারুন-অর-রশীদ, ডা.মো. শহীদ হাসান, ডা. মো. শহীদুল আলম, অধ্যাপক ডা. এ এম এস এম সারফুজ্জামান রুবেল, অধ্যাপক ডা. মোস্তাক আহমেদ, ডা. এম এ সেলিম, ডা. জহিরুল ইসলাম শাকিল, ডা. মহিউদ্দিন ভুইয়া মাসুম, অধ্যাপক ডা. সাইফুল ইসলাম, অধ্যাপক ডা. মিনহাজ রহিম চৌধুরী, অধ্যাপক ডা. মো. সিরাজুল ইসলাম, ডা. নাসির উদ্দিন আহমদে পনির প্রমুখ।

অন্যদিকে শত নাগরিক কমিটির বিবৃতিতে বলা হয়, ‘গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র পিএইচএ ভবন, কর্মকর্তা কর্মচারীদের বাসভবন, শিক্ষার্থীদের ছাত্রাবাসে হামলা, ভাঙচুর ও ছাত্রছাত্রীদের লাঞ্চনার মাধ্যমে যারা ভয়ংকর সন্ত্রাস চালিয়েছে তারা যে গুরুতর ফৌজদারী অপরাধ করেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এই অপরাধের দায় সরকার এড়াতে পারে না। কারণ সরকারের মদদ ছাড়া এই বর্বর তাণ্ডব চালানো দুর্বৃত্তদের পক্ষে সম্ভব হত না।

নাগরিক ঐক্যের বিবৃতিদাতারা হলেন— প্রফেসর এমাজউদ্দীন আহমদ (আহ্বায়ক), বিচারপতি মোহাম্মদ আবদুর রউফ, প্রফেসর ড. আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, আবু হেনা, ড. মাহবুব উল্লাহ, মাহফুজ উল্লাহ, প্রফেসর আফম ইউসুফ হায়দার, ড. খন্দকার মুশতাহিদুর রহমান, ড. সদরুল আমিন, আলমগীর মহিউদ্দিন, ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী, প্রফেসর আবদুর রহমান সিদ্দিকী, প্রফেসর ড. সুকোমল বডুয়া, ড. জেড এম তাহমিদা বেগম, এম আব্দুল্লাহ, ড. সাহিদা রফিক, ড. হায়দার আলী, প্রফেসর একেএম আজহারুল ইসলাম, প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম, প্রফেসর কেএএম শাহাদাত হোসেন মন্ডল প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ