প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মৎস্য সঙ্গনিরোধ ও মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট বিল পাস

তরিকুল ইসলাম সুমন : পিরানহা, আফিকান মাগুরের মতো বিপদজনক প্রজাতির মাছ, মাছের রেণু, পোনা পিএল ইত্যাদির অনুপ্রবেশ রোধের জন্য সংসদে পাস হয়েছে ‘মৎস্য সঙ্গনিরোধ বিল ২০১৮। রোববার রাতে বিলটি সংসদে স্থিরিকৃত আকারে কন্ঠভোটে পাস হয়। ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ। এটি একটি নতুন আইন। মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি, মৎস্য পণ্যের গুণগত মান বজায় রাখার পাশাপাশি অনুমোদিত ভাবে পিরানহা, আফিকান মাগুরের মতো বিপদজনক প্রজাতির কোন মাছ, মাছের রেণু, পোনা পিএল ইত্যাদির অনুপ্রবেশ রোধের জন্য বিলটি আনা হয়। পাশাপাশি আমদানিকরা বিভিন্ন প্রজাতির মাছের সঙ্গে থাকা বিভিন্ন রোগ জীবানু প্রতিরোধেও এ আইনটি কার্যকর হবে।

অপরদিকে স্বপ্লব্যায়ে পরিবেশ বান্ধব উন্নত মৎসচাষ ব্যবস্থাপনার জন্য প্রযুক্তির উদ্ভাবন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, মান নিয়ন্ত্রণ ও বিপণন ব্যবস্থাপনায় আরো গতিশীলতা আনতে ‘বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট বিল ২০১৮’ পাস করেছে সংসদ। ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ।

উচ্চ আদালতের নিদের্শে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত জারিকৃত অধ্যাদেশ কার্যকারিতা হারানোর ফলে মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ‘ফিসারিজ সিসার্চ ইনস্টিটিউট অধ্যাদেশ ১৯৮৪’ আইনটি সংশোধন, পরিমার্জন ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে বিলটি আনা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ