প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘দেশবাসীকে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন উপহার দিতে চায়’

পলাশবাড়ী (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম চৌধুরি বলেছেন, ‘সামনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ব্যালট পেপার ও ব্যালট বাক্স ছিনতাই করার যুগ শেষ হয়ে গেছে। একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেশবাসিকে উপহার দিতে নির্বাচন কমিশন সক্ষম। সে লক্ষেই নির্বাচন কমিশন কাজ করে যাচ্ছে। আনুষ্ঠানিক ভাবে তফশীল ঘোষণার মধ্য দিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ শান্তিপূর্ণ-সুষ্ঠু ও গ্রহনযোগ্য করতে বিধি মোতাবেক সম্ভাব্য সবধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন। ’

কবিতা খানম চৌধুরি গতকাল শনিবার রংপুর জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টারে ইলেক্টনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রদর্শনি উদ্বোধন উপলক্ষে এক মতবিনিময় শেষে রাতে তিনি পলাশবাড়ী সদরে অবস্থিত ছালেহা-আজিজ প্লাজায় তার নিজস্ব বাসভবনে রাত্রি যাপন করেন।

রোববার সকাল থেকে তিনি দিনভর পলাশবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ব্যক্তিগত সফর করেন। প্রথমে তিনি পলাশবাড়ী থানা ভবন পরিদর্শন আসলে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা চানান। এসময় জেলা পুলিশের আয়োজনে সম্মানসূচক আনুষ্ঠানিক গার্ড-অব-অনার প্রদান করেন পলাশবাড়ী থানা পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান।

পরে তিনি থানা ভবন কার্যালয়ে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নেন। জেলা প্রশাসক সেবাস্টিন রেমা, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মেজবাউল হোসেন, উপজেলা নির্বাচন অফিসার শাহীনুর আলম, আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু বকর প্রধান, থানা অফিসার ইনচার্জ মো. হিপজুর আলম মুন্সি, কবিতা খানমের দেবর অধ্যক্ষ সাইফুলার রহমান চৌধুরি তোতা ও প্রভাষক জোহা চৌধুরি এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এসময় তিনি বলেন, ইভিএম নিয়ে না বুঝেই বিভ্রন্তি ছড়ানো হচ্ছে। এই বিভ্রান্তি দূর করার চেষ্টা করছে নির্বাচন কমিশন। প্রযুক্তি ব্যবহার করলে সময় ও অর্থের অপচয় অনেক কম হয়। ফলে দেশের উন্নয়ন হয়। এখন আমাদের সামর্থ বেড়েছে তাই প্রযুক্তি ব্যবহারে আমাদের কোন বাধা নেই। প্রযুক্তি গ্রহণের মানসিকতা তৈরী করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শতভাগ ইভিএম ব্যবহার করতে না পারলেও আগামী স্থানীয় সরকার নির্বাচনে আমরা ইভিএম ব্যবহার করবো।

ইভিএম এর যারা বিরোধীতার করছেন তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন আগে দেখুন জানুন এরপর গঠন মূলক সমালোচনা করুন। তাহলে দেশের উন্নয়ন হবে। এর আগে তিনি সদরের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পিয়ারী পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। পরে তিনি তাঁর শ্বশুরালয় উপজেলার মহদীপুর ইউপি’র পার্বতীপুর গ্রামে চৌধুরি বাড়ী যান। সেখানে তিনি পরিবারের সদস্যবর্গসহ আত্মীয়-স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ