প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মৌলভীবাজারে পরিবহন শ্রমিকদের কর্মবিরতি জনদুর্ভোগ চরমে

স্বপন কুমার দেব, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ৪৮ ঘন্টার কর্মবিরতিতে মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ও হাটবাজার সমুহে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। পরিবহন ধর্মঘটের ফলে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও সকল প্রকার যানবাহন শুন্য, রাস্তাঘাট ও হাটবাজার ফাঁকা হয়ে পড়েছে। ফলে চরম জনদুর্ভোগে পড়েন শিক্ষার্থী, চাকুরীজবিসহ সাধারণ মানুষজন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিতির হারও ছিল একবারে কম। পরিবহন ধর্মঘটের সাথে প্রাকৃতিক দুর্যোগ আকস্মিক বৃষ্টিপাতে জনদুর্ভোগও সৃষ্টি হয়েছে।

রোববার সকাল থেকেই জেলার বিভিন্ন এলাকায় রাস্তার পাশে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা যানবাহনের জন্য অপেক্ষারত থাকতে দেখা গেছে। তবে রাস্তায় রিক্সা ও মোটরসাইকেল ব্যতীত কোন ধরণের যানবাহন চোখে পড়েনি। ফাঁকা রাস্তায় বিভিন্ন উপজেলার সড়কে শ্রমিকরা গাড়ি আড়াআড়ি ফেলে গাড়ি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রাখে। শমশেরনগর বাজারের ভানুগাছ রোডে যানবাহন চালকরা রাস্তার মাঝে সিএনজি-অটোরিক্সা ফেলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছেন পরিবহন শ্রমিকরা। ঔষধ বহনকারী কোম্পানীর যানবাহন সমুহও সেখানে আটকা পড়ছে। এছাড়াও জেলা সদর ও শ্রীমঙ্গল-কুলাউড়া ও রাজনগর উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ সড়কসহ ছোট ছোট হাটবাজার সমুহে যাতায়াতকারী সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহে নগন্য শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি দেখা গেছে। হাটবাজার ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সমুহ ফাঁকা রয়েছে।

পরিবহন ধর্মঘটের কারণে রিক্সা ও ব্যক্তিগত মোটরসাইকেল ব্যতীত জেলার কোন সড়কে সিএনজি অটোরিক্সা,মাইক্রোবাস, বাস, প্রাইভেট কার কোন কিছুই চলাচল করেনি। ফলে জেলা সড়র মৌলভীবাজার সরকারী কলেজ ও কমলগঞ্জ কলেজে অনুষ্ঠিত সম্মান চুড়ান্ত পরীক্ষার শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে পথের বিভিন্ন স্থানে প্রতিবন্ধকতার মাঝে পড়তে হয়েছে। যানবাহন চলাচল না করায় হাট বাজারে মানুষজনের উপস্থিতিও ছিল কম। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহেও উপস্থিতি ছিল কম। একই সাথে বৃষ্টিপাতের কারণে খেটে খাওয়া মানুষজনও ঘর থেকে বের হতে পারেননি। বেশীরভাগ মানুষজনকে ঘরে বসে থাকতে হয়েছে। রোববার কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ও ভানুগাছ বাজারে সাপ্তাহিক হাটেও মানুষজনের উপস্থিতি ছিল খুবই কম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ