প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কমনওয়েলথ ইয়ুথ সামিটের এক্সিকিউটিভ হলেন বাংলাদেশের মেহেদী

সাব্বির আহমেদ : মালয়েলিশয়ার সানওয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠেয় ফিউচার ইয়ুথ সামিট-২০১৮’র এক্সিকিউটিভ মেম্বার (নির্বাহী সদস্য) নির্বাচিত হয়েছেন সাহিত্যিক ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সরোজ মেহেদী।

কমনওয়েলথ সেক্রেটারিয়েট, কমনওয়েলথ ইয়ুথ কাউন্সিল ও কমনওয়েলথ ইয়ুথ ইনোভেশন সেন্টারের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠেয় এ সামিটে মেহেদী তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের নির্বাহী সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের পাঁচ শতাধিক তরুণ নেতা, উদ্যোক্তা, সমাজকর্মী, শিল্প বিশেষজ্ঞ, সরকারি কর্মকর্তা, সমাজকর্মী এ সামিটে যোগ দেবেন। সামিটে কমনওয়েলথের সেক্রেটারি জেনারেল প্যাটরিসিয়া স্কটল্যান্ড, ভারতের প্রখ্যাত লেখক ও সমাজকর্মী বন্দনা শিভা ছাড়াও রাশিয়া, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, ইথিউপিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশের মন্ত্রীদের যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

এ বিষয়ে সাহিত্যিক সরোজ মেহেদী বলেন, দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে সবসময়ই ভালোলাগে। সারা পৃথিবীর সামনে নিজের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করবো, এ অনুভূতি অভাবনীয়। কমনওয়েলথ আমার ওপর যে আস্থা রেখেছে নিজের সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে তার প্রতিদান দেওয়ার চেষ্টা করবো।

বাংলাদেশেও যেন এমন সামিট হয় সে উদ্যোগ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান এ তরুণ গবেষক।

গত ২৫ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর ভারতের নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত ‘মহাত্মা গান্ধী ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন মাল্টিডিসিপ্লিনারি স্টাডিজে’ গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সরোজ মেহেদী। তার আগে ২০১৬ সালে দ্য বিথ ইউনিভার্সিটি অব অ্যাপলায়েড সায়েন্স-বার্লিন, জার্মানি, আকদেনিজ ইউনিভার্সিটি ও খোজায়েলি ইউনিভার্সিটি অব টার্কির যৌথ আয়োজনে সেকেন্ড ইন্টারন্যাশনাল কনগ্রেস অন মিডিয়া স্টাডিজে ‘অটপসি অব নিউ মিডিয়া ফ্রম আসপেক্ট অব স্যোশাল মিডিয়া’ শীর্ষক গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মেহেদী। একই বছর স্লোভাকিয়ার কনস্টানটাইন দ্য ফিলোসোফার ইউনিভার্সিটি থেকে ‘দ্য এফেক্ট অব ইন্ডিয়ান পপ কালচার অন বাংলাদেশ’শীর্ষক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয় তার।

২০১৭ সালে ওআইসির অর্থায়নে সুদানের খার্তুমে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড মুসলিম ইয়ুথ সামিট অ্যান্ড এক্সিবিশানে ‘রোল অব ইয়ুথ ইন স্যোশাল মুভমেন্ট অ্যান্ড স্যোশাল মিডিয়া, এবং একই বছর ইস্তানবুলের গেলিশিম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক আয়োজিত থার্ড ইন্টারন্যাশনাল নিউ মিডিয়া কনফারেন্সে ‘স্যোশাল মিডিয়া অ্যান্ড ইটস ইমপোরটেন্স ইন মডার্ন এরা’ শীর্ষক গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মেহেদী।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক চেয়ারপারসন ও সোশ্যাল সায়েন্স ফ্যাকাল্টির সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. হেলেনা ফেরদৌসীর সঙ্গে যৌথভাবে ‘রাশিয়া-টার্কি ক্ল্যাশ অ্যান্ড মিডিয়া ইন ২০১৫: এ স্টাডি অন বাংলাদেশি জার্নালিস্টস’ শিরোনামে একটি গবেষণাকাজ সম্পন্ন করেছেন তিনি।

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা ও যোগাযোগ বিভাগের শিক্ষক সরোজ মেহেদী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতায় পড়ার সময় দৈনিক ইত্তেফাকের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০১৪ সালে দৈনিক যুগান্তরের স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কাজ করার সময় তিনি তুরস্ক সরকারের বৃত্তি নিয়ে ইস্তানবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে যান। পরে তিনি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের ফান্ড নিয়ে হাঙ্গেরির প্যাননিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ও তুরস্কের কাদির হাস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইউরোপিয়ান স্টাডিজের ওপরে দু’টি ক্রেডিট প্রোগ্রাম সম্পন্ন করেন। ২০১৮ সালে ফেব্রুয়ারিতে দেশে ফিরে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি বেশ কিছু প্রাইভেট ইনস্টিটিউটে প্রশিক্ষক হিসেবে ক্লাস নেন মেহেদী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ