প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আট দফা দাবিতে শ্রমিক ধর্মঘট

আমজাদ হোসেন আমু, (রামগতি) লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুর রামগতি-কমলনগর সড়কে শ্রমিকের আট দফা দাবিতে ধর্মঘট চলছে। শ্রমিক সংগঠনটির সভাপতি-সম্পাদক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞাপ্তিতে সারা দেশে ৪৮ঘন্টা ধর্মঘট ডাকা হয়। রবিবার (২৮ অক্টোবর)  সকাল থেকে লক্ষ্মীপরে রামগতি-কমলনগরসহ পুরো জেলায় সকল ধরণের দুরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ দেখা যায়। ধর্মঘটের কারণে যাত্রীসহ সাধারণ জনগন যাতায়াত দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।

ঢাকা যাতায়াত করা যাত্রী, আকবর জানান,বাস বন্ধ থাকার কারনে ঢাকা যেতে পারছি না।এতে আমার অনেক ক্ষতি হবে।নিশাদ জানান,আমি ছুটিতে বাড়িতে এসেছি।আজ ছুটি শেষ। কিন্তু হঠাৎ ডাকা ধর্মঘটে আমি যেতে পারছিনা। এতে আমার অনেক সমস্যা হবে। এছাড়াও দেখা যায়,সড়কে দুরপাল্লা বাস ও ছোট ছোট যাত্রীবাহী গাড়িও বন্ধ। বড়-ছোট যানবাহন বন্ধের কারণে বিভিন্ন স্থানে যাত্রী হয়রানিসহ দুর্ভোগ পড়ছে সাধারণ জনগন। লক্ষ্মীপুর বাস মালিক সমিতির সভাপতি,  এড.ফখরুল ইসলাম নাহিদ জানান,আট দফা আইনে কিছু আইন যেমন, মামলা জামিনযোগ্য, জরিমানা কমানো,শ্রমিকের নিরাপত্তা আইন সহ দফাগুলো বিবেচনা করে শীতিলযোগ্য  করতে হবে।

পরিবহন শ্রমিকদের ঘোষিত আট দফ দাবি হল- সড়ক দুর্ঘটনায় মামলা জামিনযোগ্য করতে হবে, শ্রমিকদের অর্থদণ্ড পাঁচ লাখ টাকা করা যাবে না, সড়ক দুর্ঘটনা তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক প্রতিনিধি রাখতে হবে, ড্রাইভিং লাইসেন্সে শিক্ষাগত যোগ্যতা পঞ্চম শ্রেণী করতে হবে, ওয়েস্কেলে (ট্রাক ওজন স্কেল) জরিমানা কমানোসহ শাস্তি বাতিল করতে হবে, সড়কে পুলিশের হয়রানি বন্ধ করতে হবে, গাড়ির রেজিস্ট্রেশনের সময় শ্রমিকদের নিয়োগপত্র সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সত্যায়িত স্বাক্ষর থাকার ব্যবস্থা করতে হবে, সব জেলায় শ্রমিকদের ব্যাপক হারে প্রশিক্ষণ দিয়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু করতে হবে এবং লাইসেন্স ইস্যুর ক্ষেত্রে দুর্নীতি ও অনিয়ম বন্ধ করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১৯ সেপ্টেম্বর ‘সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮’ জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। ফেডারেশনের পক্ষ থেকে দীর্ঘদিন যুগোপযোগী আধুনিক ও উন্নত সড়ক পরিবহন আইন প্রণয়নের দাবি করে আসছে। সেই দাবিকে গুরুত্বসহকারে বিবেচনায় নিয়ে বর্তমান সরকার আইন পাস করলেও বেশকিছু ধারা শ্রমিকস্বার্থের বিরুদ্ধে করা হয়েছে। যে কারণে পরিবহন শ্রমিকদের চরম অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ