প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তুর্কি শহর কারাকোসান- যেখানে দরিদ্ররা অভুক্ত থাকেন না

নূর মাজিদ : আগস্ট মাসে সূর্যের প্রচ- উত্তাপের মাঝে একটি তুর্কি রেস্তোরাঁর মালিক ও কর্মচারীরা তাদের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ খদ্দেরের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। অনেকক্ষণ অপেক্ষার পর সেই খদ্দেরের আগমনও হলো। কিন্তু এই সম্মানিত খদ্দের কিন্তু পরিবেশিত খাবারের মূল্য পরিশোধ করলেন না, বরং এমনটি তিনি কখনোই করেন না বা তার করবার প্রয়োজনও নেই। একটি প্রাচীন ও শতবর্ষী প্রথার ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এভাবেই যুগ যুগ ধরে পূর্ব আনাতোলিয়ার কারাকোসান শহরের রেস্তোরাঁগুলো স্থানীয় দরিদ্র জনগণকে রোজ বিনামূল্যে খাবার খাইয়ে আসছে। আধুনিকতার হাওয়া লাগলেও এই প্রথার কোনো পরিবর্তন আসেনি শহরটিতে, বরং এক প্রজন্ম থেকে আরেক প্রজন্মে এর বীজ ছড়িয়ে পড়েছে।

এই বিষয়ে কারাকোসান শহরের ব্যস্ততম রেস্তোরাঁর স্বত্ব¡াধিকারী মেহমেদ ওজতুর্ক (৫৫) বলেন, তিনি সকল সময় তার রেস্তোরাঁর তিনটি টেবিল অভুক্ত এবং দরিদ্র জনগণের জন্য সংরক্ষণ করে রাখেন। এমনকি যখন রেস্তোরাঁটিতে নিয়মিত খদ্দেরদের প্রচ- ভিড় থাকে তখনও কোনো অভুক্ত দরিদ্র ব্যক্তিকে নিরাশ হয়ে ফিরতে হয় না। প্রতিদিন তার রেস্তোরাঁয় অন্তত ১৫ জন দরিদ্র ও অসমর্থ ব্যক্তিকে বিনা পয়সায় খাবার পরিবেশন করা হয়। স্থানীয় অভিবাসীদের মতে, শহরটির বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় প্রতিদিন অন্তত ১শ জন দরিদ্র ব্যক্তিকে উচ্চমানের খাবার খাওয়ানো হয়। ২৮ হাজার অধিবাসী অধ্যুষিত ছোট্ট শহরটির জন্য এই প্রথা তাদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও ধর্মীয় মূল্যবোধের সঙ্গে স¤পর্কিত বিষয়।

এই বিষয়ে ওজতুর্ক বলেন, এই প্রথা চিরকালই আমাদের স্থানীয় ঐতিহ্যের অংশ ছিলো। আমাদের জন্য এই প্রথা রক্ষা করা একটি সাধারণ দায়িত্ব। আমাদের পূর্বপুরুষের কাছ থেকেই আমরা এই ঐতিহ্য শিখেছি। মিডল ইস্ট আই

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ