প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তরুণ প্রার্থীদের প্রচারণায় উজ্জীবিত নির্বাচনী মাঠ বরিশাল

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দীর্ঘদিন থেকে বরিশালের কয়েকটি নির্বাচনী এলাকায় মনোনয়ন প্রত্যাশী তরুণ প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচার-প্রচারনা, গণসংযোগ ও উঠান বৈঠকে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ।

অসহায় পরিবারের মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, দারিদ্র পরিবারকে নগদ অর্থ বিতরণ, নিজস্ব অর্থায়নে এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ও দলীয় কর্মসূচিতে নিজেদের জড়িয়ে রেখে একপ্রকার প্রতিযোগিতার সৃষ্টি করেছেন এসব মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভ্রাব্য প্রার্থীরা। পাশাপাশি অধিকাংশ প্রার্থীরা সরকারের নানামুখী উন্নয়ন কর্মকান্ডকে ভোটারদের মধ্যে প্রচার করে একাদশ জাতীয় নির্বাচনে শেখ হাসিনার সরকারকে পূর্ণরায় ক্ষমতায় আনার জন্য নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করে চলছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বরিশাল-৫ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী আটজন। এরমধ্যে তরুন প্রার্থী হিসেবে দীর্ঘদিন থেকে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সালাহউদ্দিন রিপন। স্বেচ্ছাসেবী এস আর সমাজ কল্যান সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও নারী জাগরনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে সর্বত্র ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করা উদ্যোক্তা আলহাজ্ব মোঃ সালাহউদ্দিন রিপন সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নচিত্র তুলে ধরে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করে চলেছেন। নির্বাচনী এলাকার ১০টি ইউনিয়ন এবং মহানগরীর ওয়ার্ড পর্যায়ে নিয়মিত গণসংযোগের পাশাপাশি উঠান বৈঠক, মতবিনিময় ও পথসভা অব্যাহত রেখেছেন। সালাহউদ্দিন রিপন ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ১০টি ইউনিয়নের এক লাখ নারী-পুরুষকে চিকিৎসাসহ আর্থিক সহযোগিতার মাধ্যমে স্বাবলম্ভী করেছেন।
একইভাবে বরিশাল-৩ (বাবুগঞ্জ-মুলাদী) আসনে তিন তারুণ্যের প্রচারণায় উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ। শেষপর্যন্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কে মনোনয়ন পাবেন কিংবা কে নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে তা নিয়ে এখনই চলছে ভোটারদের চুলচেরা বিশ্লেষণ। এ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বরিশাল বিভাগ উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় যুব মৈত্রীর সহসভাপতি আতিকুর রহমান আতিক দীর্ঘদিন থেকে এলাকার ব্যাপক উন্নয়নের পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের ঘনিষ্ঠজন আতিকুর রহমান তৃণমূলের সাধারণ মানুষের সাথে নিবির সম্পর্ক স্থাপন করে তুলেছেন। ইতিমধ্যে নিজ নির্বাচনী এলাকায় তিনি গণসংযোগ, মতবিনিময়, সমাবেশের পাশাপাশি ভোট কেন্দ্র কমিটিও গঠণ করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী আতিকুর রহমান প্রতিটি সভা-সমাবেশে তুলে ধরছেন বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানা ইতিবাচক কাজের ফিরিস্থি।

তিনি (আতিকুর রহমান) বলেন, মহাজোটের শরীক দলের আসন হিসেবে পরিচিত এ আসনের ভোটাররা প্রথমে জাতীয় পার্টি ও পরে ওয়ার্কার্স পার্টি মনোনীত দুই সংসদ সদস্যকে দেখেছেন। তারা এলাকার ফল উন্নয়ন করেছেন তা ভোটারদের জানা রয়েছে। তাই নির্বাচনী এলাকার সর্বস্তরের ভোটারদের অনুরোধে আমি নিজেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ঘোষণা করে মাঠে নেমেছি। দলমত নির্বিশেষে এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে সর্বস্তরের মানুষ আমাকে সমর্থনও দিচ্ছেন।

অপরদিকে বরিশাল-৩ আসনের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা স্বপ্ন দেখছেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তারা সরাসরি নৌকা প্রতীকে ভোট দিবেন। দীর্ঘদিন থেকে এ আসনে নৌকার প্রার্থী না পেয়ে হতাশ হয়ে পরা নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে সক্ষম হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক এবং ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুলাদী সদরের বাসিন্দা তরুন প্রার্থী মিজানুর রহমান মিজান। তিনি দীর্ঘদিন থেকে নির্বাচনী এলাকার দুই উপজেলায় নেতাকর্মীদের নিয়ে হ্যান্ডবেলের মাধ্যমে সরকারের উন্নয়ন প্রচারনার পাশাপাশি নৌকার পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগ, সভা ও সমাবেশ করে সারা ফেলেছেন। তিনি (মিজানুর রহমান) বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা উপহার দেবেন বলে আমি শতভাগ আশাবাদী। তাই বরিশাল-৩ আসনকে এবারই সর্বপ্রথম আওয়ামী লীগের আসন হিসেবে উপহার দেয়ার জন্য সবধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি।

একই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন লাভের আশায় গণসংযোগ করছেন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত শহীদ মোস্তাক আহমেদ সেন্টুর বড় ভাই বাংলাদেশ প্রজন্ম লীগের প্রতিষ্ঠা সভাপতি, মুলাদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহসম্পাদক তরুন প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান নিলু। তিনি বলেন, তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সাথে সভা-সমাবেশ করে অনেক সারা পেয়েছি। সাধারণ মানুষ মনে করেণ তাদের পছন্দের প্রার্থী হিসেবে আমাকে মনোনয়ন দেয়া হলে এ আসনটি আওয়ামী লীগের ঘরে ওঠার শতভাগ সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে জোট মহাজোটের হিসেব নিকেশ মেলালে সরাসরি আওয়ামী লীগের কোন প্রার্থী এ আসনটিতে থাকবেন না বলেন মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা। সেক্ষেত্রে এ আসনে সাধারণ ভোটারদের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মাঠে সক্রিয় থাকা স্বতন্ত্র প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিকের বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবণা অনেকাংশে বেশি।

একইভাবে দীর্ঘদিন থেকে বরিশাল-৪ (হিজলা-মেহেন্দীগঞ্জ) আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে চরম বিভক্তির কারণে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন তরুন প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগ করে যাওয়া নতুন ধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী। তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্ট স্বাধীনতা ও ধর্ম-ব্যবসায়ীদের সৃষ্টি। আর তা অনুমান করেই ড. কামাল সাহেবের ঐক্যফ্রন্টে যাইনি। কেননা, নতুন-ধারা বাংলাদেশ এনডিবি বাংলাদেশকে-বাংলাদেশের মানুষকে ভালোবাসে, ক্ষমতা বা অর্থকে নয়। আমরা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিবেদিতদের পাশে ছিলাম, আছি এবং থাকবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ