প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশিদের ‘অন-অ্যারাইভাল’ ভিসা দেবে চীন

ইত্তেফাক : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগ ও বাংলাদেশিদের অন-অ্যারাইভাল ভিসা দেয়ার বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছেন চীনের জননিরাপত্তা বিষয়কমন্ত্রী ও স্টেট কাউন্সিলর ঝাও কেঝি।

শুক্রবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনায়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ ও চীনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা জানান। দু’ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের ২৩ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দল ও চীনের মন্ত্রীর নেতৃত্বে ২৪ সদস্য বিশিষ্ট দল অংশ নেন।

বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে চারটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এরমধ্যে দুটি চুক্তির আওতায় বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রশিক্ষণ ও অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করবে চীন। এছাড়া সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধে বাংলাদেশকে প্রযুক্তিগত ও দক্ষতা উন্নয়নে প্রশিক্ষণ দেবে দেশটি।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, চীন বাংলাদেশের সব নাগরিকদের অন-অ্যারাইভাল ভিসা দেয়ার কথা বলে গেছে। আমাদের ট্যুরিস্ট, আমাদের ব্যবসায়ী যদি সময়ের অভাবে ভিসা না নিয়ে যেতে পারেন তাহলে সেখানে গেলে তাদের অন-অ্যারাইভাল ভিসা দেবে।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কথা হয়েছে, মিয়ানমার সিটিজেনদের কত তাড়াতাড়ি নিয়ে যাবে। রিকোয়েস্ট করেছি, তারা যেন একটা ভূমিকা রাখে। এবং তারা আমাদের সঙ্গে এগ্রি করেছেন। তারা মনে করেন, এরা খুব শিগগিরই ফিরে যাবে। এবং তারা এ বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে রয়েছেন। বাংলাদেশ যে অসুবিধায় পড়েছে, তারা ফিল করছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বৈঠকে জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূলসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে সহযোগিতা দিতে চীনের সঙ্গে চারটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বৈঠকে চীনের পক্ষ থেকে বাংলাদেশে জঙ্গি, সন্ত্রাস ও সাইবার ক্রাইম দমন এবং মাদক নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশকে প্রশিক্ষণ দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়াও বাংলাদেশে চীনের বিনিয়োগকারীসহ নাগরিকদের নিরাপত্তা দেয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেন সে দেশের জননিরাপত্তা বিষয়কমন্ত্রী। আগামীতে তার দেশ বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করবে বলেও আশ্বাস কথা জানান তিনি।

সকাল ১০টায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনায় সভাকক্ষে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও চীনের জননিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ও পার্টি কমিটির সম্পাদক ঝাও কেঝির নেতৃত্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকটি শুরু হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় চীনের জননিরাপত্তা বিষয়কমন্ত্রী সচিবালয়ে উপস্থিত হলে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয় চীনের মন্ত্রীকে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রাঙ্গনে অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) একটি দলের সালাম গ্রহণ করেন ঝাও কেঝি।

এর আগে বৃহস্পতিবার ৩ দিনের সফরে বাংলাদেশে আসেন ঝাও কেঝি। পরে সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। এ বছর চীন থেকে বাংলাদেশে এটি সর্বোচ্চ পর্যায়ের সফর।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ