প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রী ও ওবায়দুল কাদেরকে শনিবার চিঠি দেবে ঐক্যফ্রন্ট, তফসিলের অাগে ইসিকে

বাংলা ট্রিবিউন : ঘোষিত সাত দফা ও ১১টি লক্ষ্যকে সমন্বয় করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এবং নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। শনিবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবন এবং ওবাদুল কাদেরর বাসায় চিঠি পৌঁছে দেওয়া হবে। এছাড়া নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেওয়া হবে তফসিল ঘোষণার আগে। এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় ঐক্যফ্রন্টের গণফোরামের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত শেষ বৈঠকে। শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপির চেয়ারপাসনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে দলটির স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্য এসব বিষয়ে আলোচনা করেছেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একাধিক নেতা জানান, শনিবার সকাল থেকে দুপুরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে চিঠি পৌঁছে দেওয়া হবে। ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম দুই নেতা গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মো. মনসুর চিঠি পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব পেয়েছেন।

এ বিষয়ে মোস্তফা মহসিন মন্টু  বলেন, ‘শনিবার চট্টগ্রামে আমাদের সমাবেশ আছে। বিমানে চট্টগ্রাম যাব। যাওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রী ও কাদের সাহেবের (ওবায়দুল কাদের) কাছে চিঠি পৌঁছে দিয়ে যাব।’

এর আগে শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) সকালে প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া চিঠির খসড়া তৈরি করতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের বাসায় যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। ওই বৈঠকে কামাল হোসেনের সঙ্গে চিঠির বিষয়বস্তু ও খসড়া নিয়ে পরামর্শ করেন তারা।
জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘দুইটা চিঠি দ্রুত দেওয়া হবে। একটা প্রধানমন্ত্রীকে, অন্যটি ওবায়দুল কাদেরকে। চিঠিতে মূলত, নির্বাচন সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক করতে তাদের প্রতি আহ্বান থাকবে। ঐক্যফ্রন্টের সাতদফা ও ১১ লক্ষ্যের ওপর ভিত্তি করেই তাদের চিঠি দেওয়া হচ্ছে।’
এদিকে, শুক্রবার এক অনির্ধারিত বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা নির্বাচন কমিশনকে দেওয়ার জন্য চিঠির বিষয়বস্তু নিয়ে আলোচনা করেছেন। আগামী দুই-একদিনের মধ্যে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হবে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য বলেন, ‘তফসিল ঘোষণার আগেই দুটি চিঠি, দুই প্রতিনিধি দল সংশ্লিষ্টদের কাছে পৌঁছে দেবে।’

এ বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমরা ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এবং নির্বাচন কমিশনে চিঠি দেব।’ কবে দেবেন- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে কাজ চলছে, দ্রুত দেওয়া হবে।’
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদও একই কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে। কবে দেওয়া হবে, এটা বলতে পারবো না।’ বিএনপির সূত্রগুলো বলছে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা ও ১১টি লক্ষ্যকে সমন্বয় করেই চিঠি প্রস্তুত করা হচ্ছে। এতে আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু করতে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) উদ্যোগ নেওয়ার অনুরোধ জানানো হবে। ইতোমধ্যে বিএনপি বিগত কয়েক বছরে ইসিতে যেসব চিঠি দিয়েছে, খালেদা জিয়া যে প্রস্তাব দিয়েছেন, সেগুলোর মধ্যে সমন্বয় করা হচ্ছে। এসব সমন্বয় করে বিএনপির পক্ষ থেকে ঐক্যফ্রন্টের বৈঠকে তা তোলা হবে।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন এবং প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে সিলেটে জনসভার আগের দিনের (২৩ অক্টোবর) বৈঠকে। জানা গেছে, নির্বাচন কমিশনকে দেওয়া চিঠিতে ঐক্যফ্রন্টের দাবিগুলোকে সমন্বয় করেই দেওয়া হবে এ চিঠি।’
এ বিষয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন,‘ঐক্যফ্রন্টের দাবিগুলোকে কেন্দ্র করেই প্রস্তাব দেওয়া হবে। তারা সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে প্রক্রিয়া শুরু করুক।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ