প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আইসিবি’র বন্ডে বিনিয়োগের অনুমোদন পেলো রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক, ১০ শতাংশ কর ছাড় পাবেন শেয়ারহোল্ডাররা

ফয়সাল মেহেদী: শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের জন্য ২ হাজার কোটি টাকার বন্ড ছাড়বে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)। আর এই বন্ডে বিনিয়োগের অনুমতি পেয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো। এদিকে চীনা কনসোর্টিয়ামের কাছ থেকে পাওয়া ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ২৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রির টাকা ৬ মাসের মধ্যে ৩ বছরের জন্য শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করার শর্তে শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ গেইন ট্যাক্স ছাড় দিতে যাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার দুই হাজার কোটি টাকার বন্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সার্কুলার পরিপালনে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করে আইসিবি। এর প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার তা মঞ্জুর করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

জানান যায়, কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বন্ডের উদ্যোক্তা-পরিচালকদের বিনিয়োগে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিধিনিষেধ রয়েছে। আর পরিকল্পনা অনুসারে, আইসিবির ২ হাজার কোটি টাকার বন্ডের মূল বিনিয়োগকারী হবে সরকারের বিভিন্ন আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠান আইসিবির করপোরেট উদ্যোক্তা-পরিচালকও। এতে বন্ডে তাদের বিনিয়োগে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল।

আইসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হক বলেন, বন্ডে বিনিয়োগে সোনালী, জনতা, অগ্রণী, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, সাধারণ বীমা করপোরেশনের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোর সামনে আর কোনো বাধা নেই।

এদিকে ২৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রির অর্থ ৬ মাসের মধ্যে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করলে ১০ শতাংশ ‘গেইন ট্যাক্স’ ছাড় পাবেন ডিএসইর শেয়ারহোল্ডাররা। এক্ষেত্রে বিনিয়োগ হতে হবে তিন বছর মেয়াদী। এমন বিধান রেখেই সার্কুলার জারি করতে যাচ্ছে এনবিআর।

ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মোস্তাক আহমেদ সাদিক বলেন, ১০ শতাংশ গেইন ট্যাক্স মওকুফ পাবো বলে শুনেছি। তবে এখনো চিঠি হাতে পাইনি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শেয়ার বিক্রির ৯০০ কোটি টাকা শুধু শেয়ার কেনা-বেচার জন্য ব্যবহার করা যাবে। ব্রোকারেজ হাউজের কিংবা হাউজের পোর্টফোলিওর আকার বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা যাবে না। এর জন্য আলাদা বিও অ্যাকাউন্ট খুলতে হয়েছে। এখন টাকা একাউন্টে ঢুকলেই শুরু হবে বিনিয়োগ।

এর আগে গত ১২ সেপ্টেম্বর বিএসইসি’র ২৫ বছর পূর্তিতে রজতজয়ন্তীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিয়োগের সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবের শর্তে ১০ শতাংশ কর ছাড় দেওয়ার ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সম্পাদনা: হুমায়ুন কবির খোকন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ