প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আড়াইহাজারে চার যুবককে হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে পরির্বতন

এম এ হাকিম ভূঁইয়া,আড়াইহাজার : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে গুলি করে চার যুবককে হত্যার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে পরির্বতন করা হয়েছে। মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রফিক উদ্দৌলাকে পরির্বতন করে তার স্থলে ওসি তদন্ত শফিকুল ইসলামকে নিয়োগ করা হয়েছে। এর আগে ২৫ অক্টোবর বৃহম্পতিবার এই ঘটনায় গঠিত তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটির প্রধান ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি (অপরাধ) মো. আবুল কালাম ছিদ্দিকী ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন।

এদিকে মামলার নতুন তদন্তকারী কর্মকর্তা আড়াইহাজার থানার ওসি তদন্ত শফিকুল ইসলাম বলেন, ২৫ অক্টোবর হত্যা মামলার তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছি। বিভিন্ন সূত্র ধরে মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। নিহতদের পরিবারের লোকজনের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন তথ্যাদি সংগ্রহ করা হচ্ছে। আশা করছি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রকৃত ঘটনাটি উদঘাটন করা সম্ভব হবে।

আড়াইহাজার থানা এসআই রফিউদ্দৌলা বাদী হয়ে (২১অক্টোবর) রোববার রাতে নিহত চার ব্যাক্তির পক্ষে বাদী হয়ে দুইটি মামলা করেন। এর মধ্যে একটি হত্যা, অপরটি অস্ত্র আইনে মামলা। মামলা দুটি তদন্তের ভারও একই পুলিশ কর্মকর্তাকেই দেওয়া হয়েছিল।

রোববার (২১ অক্টোর) ভোর পৌনে ৬টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সাতগ্রাম ইউনিয়নের পাঁচরুখী ফকির বাড়ির সামনে চার ব্যাক্তির লাশ পড়ে ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ চার ব্যাক্তির লাশ উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তে চারজনই শর্টগানের গুলিতে নিহত হয়ে বলে জানা যায়। প্রত্যেকের মুখমন্ডল ভারী কিছু দিয়ে থেঁতলিয়ে দেওয়া হয়েছিল। অনেকের থামার মগজ বের হয়ে পড়েছিল। ঘটনাস্থল থেকে দুইটি পিস্তুল, এক রাউন্ড তাজা গুলি ও ঢাকা মেট্রো-চ-১৩-০৫০১ নাম্বারের সিলভার রঙয়ের নোয়া ব্র্যান্ডের একটি মাইক্রোবাস উদ্ধার করা হয়।

নিহত জহিরুল, সবুজ সরদার ও ফারুকের বাড়ি পাবনা জেলার আতাইকুলা থানাধীন ধর্মগ্রাম এলাকায়। একই ঘটনায় নিহত লুৎফর মোল্লা ফরিদপুর জেলার ভাঙাথানাধীন আকন্দপাড়া এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। এদের মধ্যে কেউ গাড়ীর চালক; কেউ বেকারীর শ্রমিক ছিলেন।

একই দিনে চার ব্যাক্তিকে হত্যার ঘটনার পর থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। প্রকৃত ঘটনার দ্রুত উদঘাটনের দাবি জানিয়েছেন তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ