প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিচারহীনতায় বাড়ছে হিন্দু নির্যাতন

মো. ইউসুফ আলী বাচ্চু: হিন্দু সম্প্রদায়ে একের পর এক হামলার বিচার না হওয়ার কারণে দিন দিন নির্যাতন, নিপীড়ন বেড়েই চলছে। বর্তমান সরকারের সময় গত দশ বছরে সারাদেশে হিন্দু নির্যাতনের যে ঘটনা ঘটেছে তা মধ্যযুগকেও হার মানায়। অবিলম্বে অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার দাবি।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ হিন্দু মহাজোট ঢাকা জেলা আয়োজিত মানববন্দনে এ দাবি করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গত ২০ অক্টোবর সাভার পৌর এলাকার পোড়াবাড়ী, মাঝিপাড়া গ্রামে দূর্গা প্রতিমা বিষর্জন দেয়াকে কেন্দ্র করে ২০ হিন্দু পরিবারের ওপর হামলা, মন্দির ভাঙচুর, ময়মনসিংহে জমি দখল, সতবাড়ী শ্মশান ৩০ জন আহত, সীতাকুণ্ডে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখল, গুইমারা জেতবন বৌদ্ধ বিহারে হামলাও সৌম বৌদ্ধ মুর্তি ভাংচুর, রাজশাহীর বাগমারস ১৪৭ বিঘা জমি দখল, সিলেটে হিন্দু পরিবারের জমি দখল ও দেশ ত্যাগে বাধ্য করার হুমকি, বগুড়া ধনুটে পুজা মন্ডবে হামলা, টাংগাইলের গোপালপুর ও যশোরের বাঘার পাড়ায় প্রতিমা ভাঙচুর। এ সকল অপরাধের সাথে যারা জড়িত অনতিবিলম্বে তাদের গ্রেপ্তার করে বিচারে আওতায় আনতে হবে।

বক্তারা আরো বলেন, প্রতিটি ঘটনার সাথেই সরকারি দলের নেতাকর্মীরা জড়িত থাকা সত্ত্বেও ঘটনাটি বিরোধী পক্ষের
উপর চাপিয়ে এড়িয়ে যায়। ফলে অপরাধীর বার বার রেহাই পেয়ে যায়। আর এ কারণেই অপরাধ করার পরেও ছাড়া পেয়ে যায়।

মানববন্ধনে হিন্দু মহাজোট ২ দফা দাবি জানায়
১. জাতীয় সংসদে নির্বাচন চলাকালে ও নির্বাচন পরবর্তী হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর সহিংসতা ও নির্যাতন নিরোধকল্পে এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি নিশ্চিত করতে চলমান অধিবেশনেই জাতীয় সংসদে ৫০টি সংরক্ষিত আসন ও পৃথক নির্বাচন ব্যাবস্থা পুনর্প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

২. সাভারসহ সকল ঘটনাকে মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘোষণা করে অপরাধীদের দ্রুত বিচার আইনে বিচার করে ফাঁসি কার্যকর করতে হবে। চলতি অধিবেশনে উক্ত দাবি পূরণ না হলে হিন্দু সম্প্রদায়ে বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

অ্যাড. উজ্জ্বল মন্ডলের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, তপন হাওলাদার, গোবিন্দ চন্দ্র প্রামানিক, উত্তম দাস, মনি শঙ্কর মন্ডল, প্রতীভা বাকচী, রিপন দে গোপাল পাল, রণি ঘোষ, শ্যামল ঘোষ, প্রবির হালদার, শুকদেব মাহাতো, ডা.সুমিত, প্রশান্ত হালদার, সাজেন কৃষ্ণ বল প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ