প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আইপিও-তে সাধারণের কোটা কমে যাওয়ায় নতুন বিনিয়োগ কমেছে : আবু আহমেদ

তানজিনা তানিন : সাধারণ মানুষের জন্য আইপিও কোটা কমিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। ফলে ব্যক্তিকেন্দ্রিক নতুন বিনিয়োগ কমেছে শেয়ারবাজারে। যা বাজারে লেনদেন হ্রাস ও শেয়ারের দরপতন হওয়ার কারণ হতে পারে বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আবু আহমেদ।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, যেখানে সাধারণ মানুষের জন্য আইপিও কোটা ছিলো ৮০ শতাংশ, সেখানে বর্তমানে এনআরবিসহ মাত্র ৪০ শতাংশ করা হয়েছে। যার ফলে মধ্যবিত্ত বিনিয়োগকারীরা বাজারবিমুখ হয়েছে। কর্তৃপক্ষের ভাবা উচিত ছোট বিনিয়োগকারীরাই একসময় বড় বিনিয়োগ করবে।

তিনি আরও বলেন, বাজারে ভালো শেয়ারের অভাব রয়েছে। ফলে বেশি বাজেটের বিনিয়োগ করছে না প্রতিষ্ঠানগুলো। তাছাড়া ব্যাংকে সুদের হার বেড়েছে। ব্যাংকের সুদের হারের তারতম্য শেয়ারবাজারে আঘাত হানে। শেয়ারবাজারে ক্ষতির কবলে পড়ে যারা প্রান্তিক পর্যায়ে চলে গেছে তারা আর কেউ বাজারমুখি হচ্ছে না। আর যারা লেনদেন করছেন তারাও শেয়ার বিক্রি করে দিচ্ছে দাম কমার ভয়ে। শেয়ারবাজারের প্রতি আস্থা হারিয়েছে মানুষ।

এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক আবু আহমেদ বলেন, অনেকদিন ধরে বাজার নিম্নমুখি। বাজারে ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে বহুজাতিক কোম্পানি ও বাংলাদেশের বড় প্রতিষ্ঠানগুলোকে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করতে হবে। বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিশ্বস্ততা অর্জন করে তাদেরকে বিনিয়োগে উৎসাহী করতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ