প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন দেশে হয় না : মুজাহিদুল সেলিম

হ্যাপি আক্তার : বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, দেশবাসীর অভিজ্ঞতা হলো একটি দলীয় সরকারের অধীনে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আমাদের দেশে হয় না। জনগণের এই অনুধাবনকে আমলে নিয়ে নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের সমন্বয়ে একটা নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করে এবং পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নির্বাচন করা উচিত। এছাড়া নির্বাচন কমিশনও পুনর্গঠনও করা দরকার । তাই  সে অনুযায়ী পুনর্গঠন করা উচিত। যমুনা টেলিভিশনে ‘রাজনীতি’ টকশোতে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আমাদের সংবিধানে বলা আছে প্রজাতন্ত্রের মালিক হলো জনগণ। আর জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠিত করতে হলে তাদের প্রতিনিধিত্বশীল গণতন্ত্রের মাধ্যমে করতে হয়। জনগণ যদি তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করার সুযোগ না পায়, তাহলে গণতন্ত্রের মূলেই কুঠারাঘাত করা হয়। গণতন্ত্রের আর কোনো ভিত্তি আর তখন থাকে না। সুতরাং আমাদের অন্যতম একটা প্রধান কাজ হলো একটা অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন যাতে অনুষ্ঠিত হতে পারে তার পরিবেশ তৈরি করা। কিন্তু সেই পরিবেশ বর্তমানে নেই। কেন না, নির্বাচন এখন টাকার খেলা।

তিনি আরো বলেন, অনেকে বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। কিন্তু সংবিধান সংশোধনের কথা তো সংবিধানেই আছে। ৯১ সালে এরশাদের পতনের পর ১২ ঘণ্টার মধ্যে আমরা সিদ্ধান্ত নিলাম প্রধান বিচারপতি শাহাবুদ্দীন সাহেব প্রেসিডেন্ট হবেন, এবং সবাই একমত হলেন। ফলে সংবিধান সংশোধনের সময় নেই এ কথা ঠিক না।

৭১ এর স্বাধীনতাবিরোধীদের দল জামায়াতে ইসলামীকে রাজনীতিতে নিষিদ্ধ করার প্রসঙ্গে সেলিম বলেন, ১৯৭১ সালের পর থেকে বাংলাদেশে জামায়াতের রাজনীতি করার কোনো অধিকার নেই। স্বাধীনতার পর প্রতিটি সরকার জামায়াতকে রাজনীতি করার সুযোগ দিয়েছে। বিএনপি জামায়াতকে পুনর্বাসন করেছে আর আওয়ামী লীগ দলটিকে জিইয়ে রেখেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ