প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বেওয়ারিশ লাশ পেলে করণীয়

সাইদুর রহমান: মাঝে মধ্যে এমন লাশ পাওয়া যায় , যেখানে লাশের ধর্ম পরিচয় পাওয়া যায় না। অথবা এমন কোনো দৃশ্যমান চিহ্নও পাওয়া যায় না, যা থেকে বুঝা যায় সে এই ধর্মের বা ওই ধর্মের। এমন বেওয়ারিশ লাশ দাফনের পদ্ধতি কী হতে পারে? যখন তাকে চেনার কোনো উপায় থাকে না যে সে মুসলমান, নাকি ভিন্ন ধর্মের?

এ ক্ষেত্রে মুফতীয়ানে কেরাম বলেন, বেওয়ারিশ ওই লাশের মুসলিম হওযার বাহ্যিক কোনো নিদর্শন পাওয়া গেলে যেমন নাম পোশাক ইত্যাদি কিংবা শারীরিক নিদর্শন যেমন- খতনা ইত্যাদি থাকলে মুসলমানের লাশের মতো আচরণ করতে হবে। অর্থাৎ মুসলমানের লাশের মতই গোসল দিবে এরপর কাফন-জানাযা শেষে মুসলমানদের কবরস্থানেই দাফন করবে।

আর যদি মুসলিম হওয়ার বাহ্যিক বা শারীরিক কোনো নিদর্শনই পাওয়া না যায় তাহলে মুসলমানদের এলাকায় এ ধরনের লাশ পাওয়া গেলে তাকেও মুসলমান গণ্য করা হবে এবং মুসলমানের লাশের মতোই গোসল-জানাযা ও দাফন করবে।আর যদি এ ধরনের নিদর্শনহীন লাশ অমুসলিমদের এলাকায় পাওয়া যায় তাহলে সেক্ষেত্রে তাকে গোসল দিয়ে কাফন পরাবে। তবে তার জানাযা পড়বে না। অতপর অমুসলিমদের কবরস্থানে তাকে দাফন করবে, কিংবা ওই এলাকার ধর্ম বিশ্বাস মতে লাশের সৎকার করবে। -সূত্র : আলবাহরুর রায়েক- ২/১৭৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া- ১/১৫৯

বিভিন্ন সময়ে বেওয়ালিশ হিসেবে উদ্ধার হওয়া মৃতদেহগুলো যাদেরই হোক না কেন, তারা কারও বাবা-মা, কারও সন্তান, কারও ভাই-বোন বা স্বজন। বেওয়ারিশ পরিচয় হলেও মৃতদেহের কোনো অসম্মান ইসলাম সমর্থন করে না। ইসলামি শরিয়তের নির্দেশনা হলো- স্বাভাবিকভাবে মৃত কিংবা নিহত কোনো ব্যক্তির মৃতদেহকে সম্মান দেখাতে হবে। নিহত ব্যক্তি মুসলিম, খ্রিস্টান বা অন্য কোনো ধর্মের হয়ে থাকলেও কিংবা নাস্তিক হলেও তার দেহের অসম্মান করা ইসলাম সম্মত নয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ