প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপি’র দুশ্চিন্তা ড. কামাল কখন ‘জয় বাংলা’ বলেন : নওফেল

জুয়েল খান: আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, নেতার অভাবে বিএনপি এখন ভাড়ায় নেতা নিয়োগ করেছে। আওয়ামী লীগ থেকে আদর্শচ্যুত বিতাড়িত নেতাদের নিয়ে বিএনপি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করেছে ক্ষমতা দখলে জন্য।

তিনি বলেন, বিএনপি শুধুমাত্র ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নীতিহীন লোকদের নিয়ে জোট গঠন করেছে। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক আস্থা অর্জনের জন্য ভাড়ায় নেতা কিনছেন। এমন নেতা তারা দলে ভেড়াচ্ছেন যে তারা একেক সময় একেক কথা বলেন। এই ড. কামাল হোসেনই এক সময় বলেছেন ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় সাথে রাষ্ট্রের সম্পৃক্ততা আছে। আবার এখন সেই হামলাকারিদের সাথেই ঐক্য করছেন।

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ড. কামাল হোসনকে নিয়ে বিএনপি সারাক্ষণ চিন্তায় থাকে। কারণ বক্তৃতা দিতে গিয়ে কামাল হোসেন কখন জয় বাংলা! বলে ফেলেন বা বিএনপির সমালোচনা করেন। কারণ ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার সাথে তারেক রহমান জরিত ছিলো। দণ্ডিত আসামিদের সাথে কীভাবে জাতীয় ঐক্য হয়। সাজাপ্রাপ্ত আসামিদেরকে রাজনৈতিকভাবে প্রত্যাখ্যান করা উচিত।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। বিএনপিকে এদেশে রাজনীতি করতে হলে যারা হত্যার ষড়যন্ত্রের সাথে যারা যুক্ত, বোমা মেরে যারা মানুষ মারার সাথে জড়িত তাদেরকে পরিত্যাগ করে সুষ্ঠুধারার রাজনীতি করতে হবে। বর্তমান যে সাংবিধানিক ধারা আছে সেই সাংবিধানিক কাঠামোতেই নির্বচন হবে এবং বিএনপিকে সেই নির্বাচন মেনে নিয়ে রাজনীতিতে আসতে হবে। সুষ্ঠুধারার রাজনীতি করতে কোনো বাধা নেই। গঠনমূলক সমালোচনার কোনো বাধা নেই । তবে জ্বালাও পোড়াও করে, মানুষ মারার রাজনীতি করার কোনো সুযোগ বাংলাদেশে নেই।

এক প্রশ্নের জবাবে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে ১৫৩ জন সংসদ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে শুধুমাত্র বিএনপি নির্বাচন বর্জন করার কারণে। বিএনপি এখন যে ঐক্যফ্রন্ট গঠন করেছে সেখানে জনগণের চাহিদা পূরণের জন্য কোনো কথা বলছে না। তারা ৭ দফা ১১ টা লক্ষ্য শুধুমাত্র তাদের ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য সুবিধাজনক দাবিদাওয়া। এখানে জনগণের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান কিংবা আর্থিক উন্নয়ন সাধনের জন্য কোনো দাবি নেই। বিএনপির দাবি একটাই ক্ষমতায় যেতে চাই। সম্পাদনায়- শাশ্বত জামান। সূত্র: ডিবিসি