প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দলের জন্য কিছু করতে পেরে খুশি

হৃদয় : জহুর আহমেদ স্টেডিয়াম থেকে: দুই বছর ১১ দিন পর চট্টগ্রামে রঙিন জার্সির খেলা। স্টেডিয়াম ভর্তি দর্শকের দেখা মিললেও ঘরের মাঠে ‘ঘরের ছেলে’ তামিম না থাকায় কিছুটা আক্ষেপ সবার মধ্যেই ছিলো। তবে নিজেদের ‘লাকি গ্রাউন্ডে’ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দাপুটে জয় দিয়ে টাইগার বাহিনীর সিরিজ জয় সেই আক্ষেপ কিছুটা হলেও ঘুছিয়ে দিয়েছে সবার।

 

বুধবারের (২৪ অক্টোবর) ম্যাচে বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় টার্নিং পয়েন্ট কী? এমন প্রশ্নের সহজ উত্তর, শেষ পাঁচ ওভারে জিম্বাবুয়েকে কোনো চার-ছয় না দিয়ে মাত্র উনিশ রানে আটকে রাখা। বড় স্কোর গড়তে না দেয়া।

 

১৪ বছর পর এমন অর্জনে বড় অবদানই রেখেছেন, ক্যাপ্টেন ম্যাশের ‘আস্থাভাজন’ টাইগার বাহিনীর সেনসেশনাল অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। শুধু শেষ পাঁচ ওভারে কেনো? মাসাকাদজা, উইলিয়ামস, চিগম্বুরার মতো জিম্বাবুয়ের তিন ব্যাটিং স্তম্ভকে ফেরানোর পুরস্কার ম্যান অফ দ্যা ম্যাচও যে তিনি। আর তাই ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাইফউদ্দিনের এমন পারফরম্যান্স নিয়েই কথা উঠলো সবার আগে। প্রথম ম্যাচে ফিফটি, দ্বিতীয় ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ তিন উইকেট শিকার- কেমন লাগছে? ছোট্ট এ প্রশ্নের উত্তর সাইফউদ্দিন দিয়েছেন ছোট করেই। ‘দলের জন্য কিছু করতে পারলে খুশি লাগে!’

 

নিজেদের মাঠে সব সময় আগে ব্যাটিং করতেই অভ্যস্ত ম্যাশবাহিনী। তবে শিশিরের (কুয়াশা) কারণে ইউসিবি-ওয়ালটন ওয়ানডে তিন ম্যাচের সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে টসে জিতে পরে ব্যাট করার সিদ্ধান্তই নেন মাশরাফি। এ নিয়ে পরিকল্পনা যে আগেই ছিলো তাও স্পষ্ট করলেন সাইফউদ্দিন। জানালেন, ‘আমরা পরে ব্যাটিং করলে জিম্বাবুয়ে দলকে কম রানে আটকে রাখার পরিকল্পনা ছিলো। শেষ পর্যন্ত আমরা পেরেছি।’

 

রুবেলের অসুস্থতার জন্যই দলে জায়গা পেয়েছেন তিনি। রুবেল ফিরলে কেমন হবে টাইগার একাদশ? কঠিন এ প্রশ্নের সরল উত্তরে সাইফউদ্দিন বললেন, ‘একাদশে খেলবো, বাইরে থাকবো, আবার ফিরবো- এটায় নিয়ম। তবে চেষ্টা থাকবে ভালো কিছু করি। সবার নজরে আসি। নিজের টানা নৈপূণ্যে মাশরাফিকেই কৃতিত্ব দিলেন পেস বোলার কাম এ অলরাউন্ডার। তার ভাষায়, ‘ভালো বোলিং এর জন্য প্রাকটিসের পাশাপাশি মানসিক প্রস্তুতিও নিয়েছে। মাশরাফি ভাইকে ধন্যবাদ। মেন্টালি সাপোর্ট দেওয়ার জন্য।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত