প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে জাতীয় সংসদ নির্বাচন!

আরিফুর রহমান তুহিন: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী ১৮ থেকে ২৪ ডিসেম্বরের যেকোনো দিন এবং তফসিল ঘোষণার সম্ভাব্য তারিখ ৪ অথবা ৫ নভেম্বর। এই তারিখকে মাথায় নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যেই প্রস্ততি সম্পন্ন করেছে। ১ নভেম্বর রাষ্টপতি আবদুল হামিদের সাথে নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। ইসি সূত্রে এমন তথ্য জানা যায়।
নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, আগামী ১ নভেম্বর রাষ্ট্রপতির সাথে সিইসি কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল সাক্ষাত করার কথা রয়েছে। সেখানে তারা আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইসির প্রস্ততি সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করবেন। রাষ্ট্রপতির কাছে নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখের বিষয়েও অবহিত করা হবে। এর পরেই কমিশন তফসিল ঘোষণার মাধ্যমে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করবেন।

ইসি সূত্র থেকে জানা যায়, সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আগামী ৩১ অক্টোবর আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক ডেকেছে নির্বাচন কমিশন। সেখানে এজেন্ডা হিসেবে থাকছে- নির্বাচনে ইসির প্রস্ততি, আইনশৃঙ্খলা, ভোটারদের নিরাপত্তা, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের বিষয়সহ মোট ১১ দফা। ইসির প্রতিটি বিভাগে ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে কর্মতৎপরতা। তফসিলের আগেই সকল প্রস্ততি শেষ করতে চায় কমিশন।

সূত্র আরো জানায়, তফসিল ঘোষণা করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। লিখিত বক্তব্য পাঠের মাধ্যমে তিনি এই তফসিল ঘোষণা করবেন। তফসিলের ভিডিও রেকর্ডিংয়ের জন্য ইতোমধ্যে বাংলাদেশ টেলিভিশনকে (বিটিভি) চিঠি দিয়েছে ইসি। রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করার পরেই এই ভিডিও রেকর্ডিং করা হতে পারে বলে জানা যায়।

এর আগে গণমাধ্যমকে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন জানান, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে নির্বাচনের তফসি ঘোষণা করা হবে। তবে কবে নাগাদ নির্বাচন হবে সে বিষয়ে কমিশন কিছু জানায়নি। তবে বিভিন্ন গণমাধ্যম ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে নির্বাচন হবে বলে সংবাদ পরিবেশন করে।
এ বিষয় ইসির অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তফসিলের আগে আমাদের নেওয়া সব প্রস্ততির বাস্তবায়নের সুবিধার্থে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সহযোগিতার জন্যই আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা ডাকা হয়েছে।’ ওই সভায় নির্বাচনের প্রস্ততিমূলক কাজ কীভাবে সম্পন্ন করা যায়, সে বিষয়ে নির্দেশনা থাকবে বলেও তিনি জানান।