প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কৃষিঋণ বিতরণ শুরু করেনি ৬ বিদেশী ও দেশী ২ ব্যাংক

আদম মালেক : চলতি অর্থবছর কৃষিঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২১ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। আর জুলাই-সেপ্টেম্বরে বিতরণ করা হয় ৩ হাজার ৭১৩ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। ৪৮ টি দেশি বিদেশি বাণিজ্যিক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান এ ঋণ বিতরণ করে । বাকী ৬ বিদেশি ব্যাংকসহ ৮টি বাণিজ্যিক ব্যাংক এখন পর্যন্ত কৃষি ঋণ বিতরণ শুরু করতে পারেনি। বাংলাদেশ ব্যাংকের হাল-নাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

বিতরণকৃত ঋণের মধ্যে রাষ্ট্রায়াত্ত ৮ বাণিজ্যিক ব্যাংক বিতরণ করেছে ১৫ শ ৩৭ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ; ৩৯ টি দেশি-বিদেশি ব্যাংক বিতরণ করেছে ১৯৫৬ কোটি ১০ লাখ টাকা। আর বিআরডিবি নিজম্ব তহবিল থেকে কৃষি ঋণ বিতরণ করেছে ২১৯ কোটি ৮০ লাখ টাকা। ৬ বিদেশি ও ২ বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক কোনো কৃষিঋণই বিতরণ করতে পারেনি। কৃষি ঋণ বিতরণ শুরু না করা বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো হলো-ব্যাংক আল ফালাহ, সিটি ব্যাংক এনএ, কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন,নাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান,স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া ও উরি ব্যাংক।

আর দেশি বেসরকারি বাণিজ্যিক মধুমতি ব্যাংক ও সীমান্ত ব্যাংকও কৃষিঋণ বিতরণ শুরু করতে পারেনি।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষিঋণ বিভাগের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, এখনও যে সব ব্যাংক কৃষিঋণ বিতরণ শুরু করতে পারেনি। আশা করি সে সব ব্যাংক বিতরণ শুরু করতে পারবে। কৃষিঋণ বিতরণ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করবে।
কৃষিঋণ বিতরণে অর্থবছরের প্রথম ৩ মাসের ঋণ বিতরণের চিত্র ব্যাংকিং খাতের ঋণ কাঠামো বদলের আভাস দিয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে মোট ঋণের ৪০ শতাংশ রাষ্টায়ত্ত ব্যাংকগুলো বিতরণ করতো। আর বেসরকারি দেশি-বিদেশি ব্যাংকগুলো বিতরণ করতো ৬০ শতাংশ। বিগত কয়েক বছর ৮ রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক বিতরণ করতো মোট ঋণের প্রায় অর্ধেক।

কিন্তু জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর মাসে বিতরণ করা ঋণের মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর চেয়ে দেশী বিদেশী ব্যাংকগুলো ২৭ শতাংশেরও বেশী ঋণ বিতরণ করেছে। ৮ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক বিতরণ করেছে ১৫৩৭ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। ৩৯ দেশী ও বেসরকারি ব্যাংক বিতরণ করেছে ১৯৫৬ কোটি ১০ লাখ টাকা। অর্থনীতিতে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর আধিপত্য বাড়ছে আর রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর আধিপত্য কমার চিত্র ফুটে উঠেছে।

সম্পাদনা- সোহেল রহমান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত