প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৮ ফুট ২ ইঞ্চি দেহের অধিকারী অসুস্থ জিন্নাতের বিনামূল্যে চিকিৎসার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী

শিমুল মাহমুদ : দেশের সবচেয়ে দীর্ঘতম দেহের অধিকারী অসুস্থ জিন্নাতের বিনামূলে চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার সন্ধ্যায় কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুর সরওয়ার কমল জাতীয় সংসদে তাকে নিয়ে আসলে। প্রধানমন্ত্রী তার অসুস্থতার কথা জেনে বিনামূল্যে জিন্নাতের চিকিৎসার নির্দেশনা দিয়েছেন। তাছাড়া তার জন্য একটি বাড়ি করে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি। সংসদে জুনাইদ আহমেদ পলক তাকে কিছু আর্থিক সহায়তা করেন।

দেশের সবচেয়ে দীর্ঘতম ৮ ফুট ২ ইঞ্চি দেহের অধিকারী জিন্নাত হরমোন জনিত সমস্যায় অসুস্থ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) মেডিসিন বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ফরিদ উদ্দিনের অধীনে ডি ব্লকের ১৭ তলায় এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন ভর্তি রয়েছেন। ডান পায়ে পানি জমে পায়ের গোড়ালি ফুলে যাওয়ায় ভালোভাবে হাটতে পারছেন না এই র্দীঘ মানব। তার ডান পা থেকে বাম বাঁ পা একটু বেশি লম্বা হওয়ায় হাটতে চলতে কিছুটা সমস্যা হয় বলেও জানান জিন্নাতের বড় ভাই ইলিয়াস।

কক্সবাজারের রামু উপজেলার গর্জনিয়া বড়বিল গ্রামের বৃদ্ধ বাবা আমীর হামজার এক মেয়ে, তিন ছেলের মধ্যে জিন্নাত তৃতীয়।
জিন্নাত আলীর বড় ভাই মো. ইলিয়াস আলীর দাবি, দেশের সবচেয়ে দীর্ঘকায় মানুষ তার ভাই। যদিও ভাইয়ের এই উচ্চতায় তিনি গর্বিত নন, বরং অভাব ও দারিদ্র্যের কারণ হিসেবেই দেখছেন তার ভাইকে। হাসপাতাল থেকে তাকে চার পেল্ট ভাত, চার টুকরো মাছ আর পাতলা ডাল দেওয়া হয়। এই খাবার জিন্নাতের জন্য যথেষ্ট নয় বলেও জানা তিনি।

ইলিয়াস আলী আরও বলেন, অন্য সবার মতো স্বাভাবিক ছিল জিন্নাতের গড়ন। কিন্তু ওর বয়স যখন ১২ বছর, সে সময় থেকেই দ্রুত উচ্চতা বাড়তে থাকে। প্রতিবছর দুই থেকে তিন ইঞ্চি করে আকৃতি বাড়তে থাকে। ১০ বছরের মধ্যে প্রায় চার ফুট উচ্চতা বেড়ে জিন্নাত এখন ৮ ফুট ২ ইঞ্চির এক মানব।

তিনি বলেন, পাঁচ বছর আগে পিজি হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) আনা হয়েছিল। তখন বলা হয়, তার মাথায় টিউমার রয়েছে, অপারেশন লাগবে। অপারেশন না করালে ছয় মাসের বেশি বাঁচনো যাবে না। অপারেশনের ১২ লাখ টাকা খরচের কথা শুনে আমি ভাইটারে বাড়ি নিয়ে যাই। কিন্তু ছয় বছর তার তেমন কিছু হয়নি।

ঢাকায় আনার পরও একই বিড়ম্বনা পিছু নিয়েছে জিন্নাতের। দাঁড়ালে লোকজন হাসিঠাট্টা করতে থাকে। তাই অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে থাকেন জিন্নাত। তবে ছয় ফুট লম্বা বিছানায় স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না তিনি। দুই পা-হাত গুটিয়েই রাখতে হয় তাকে সব সময়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ