Skip to main content

জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের আরও একটি সিরিজ জয়

এম এ রাশেদ: এক ম্যাচ হাতে রেখেই জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে আরও একটি সিরিজ জয় করেছে মাশরাফিবাহিনী। আজ বুধবার চট্রগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে লাল-সবুজের দল। তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ২৪৭ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ৪৪.১ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে টাইগাররা। এর আগে চট্রগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও চেপাস জুয়াও দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন। এ দু’জনে মিলে ম্যাচের শুরু থেকেই একটু দেখে শুনেই খেলতে থাকেন। তাদের ব্যাটিং দেখে একসময় মনে হয়েছিল এ দু’জনকে এতো সহজেই আটকে রাখা যাবে না। জিম্বাবুয়ের ইনিংসের ৪.৫ ওভারে তরুণ অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের দারুণ এক বলে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসবন্দী হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন অধিনায়ক মাসাকাদজা। তার আউটের পর ক্রিজে আসেন দলটির সাবেক অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলর। এ ক্রিকেটার জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটে এক নির্ভরতার প্রতীকও বটে। মাঝখানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর পর তিনি আবারও জাতীয় দলে ফিরেছেন। বুধবার মাসাকাদজার আউটের পর জুয়াওকে সঙ্গে নিয়ে অভিজ্ঞ টেইলর দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন সামনের দিকে। ১৮৭ ওয়ানডে ম্যাচ খেলা এ মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে একসময় মনে হয়েছিল তারা বাংলাদেশকে ৩০০ রানের ওপরে টার্গেট দিবে। কিন্তু জিম্বাবুয়ের ইনিংসের ২৯.৩ ওভারে অভিজ্ঞ রিয়াদের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে যখন কাটা পড়েন টেইলর তখন তার রান ছিল ৭৫ আর দলীয় স্কোর ১৪৭। শেষমেষ জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশকে ২৪৭ রানের টার্গেট দিতে পেরেছে। এদিন টেইলরের পর ব্যাটিংয়ে আলো ছড়িয়েছেন সিকান্দার রাজাও। তিনি আউট হন ব্যক্তিগত ৪৯ রানে। এছাড়া সেন উইলিয়ামসনের ব্যাট থেকে আসে ৪৭ রানের এক দায়িত্বশীল ব্যাটিং। বাংলাদেশের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ে গতকালের সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৪৬ রান সংগ্রহ করে। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন সাইফউদ্দিন।