প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচন ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করেছে আওয়ামী লীগ : জামায়াত

রফিক আহমেদ : বাংলাদেশের জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বলেছেন, বাংলাদেশ আজ গভীর রাজনৈতিক সংকটে নিপতীত। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি ভোটার বিহীন প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকার পুনরায় ক্ষমতায় এসে দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করে দেয়। বুধবার বিবৃতিতে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল এসব কথা জানান।

জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, অনেক আন্দোলনসংগ্রামের মাধ্যমে প্রায় সকল দলের ঐক্যমতের ভিত্তিতে ‘কেয়ারটেকার সরকার’ ব্যবস্থা সংবিধানে সন্নিবেশিত হয়। কেয়ারটেকার সরকার ব্যবস্থার অধীনে দেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে জাতীয় সংসদের তিনটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। যা দেশে-বিদেশে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। এ ব্যবস্থার মাধ্যমে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন এবং গণতন্ত্রের ধারা শুরু হয়। কিন্তু ওয়ান ইলেভেনের পর সেনা সমর্থিত কেয়ারটেকার সরকার দেশের রাজনৈতিক ব্যবস্থাকে ধ্বংস করার যে যাত্রা শুরু করে তারই ধারাবাহিকতায় আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসে।

জামায়াতের নেতা বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার জন্য ‘কেয়ারটেকার সরকার’ ব্যবস্থাটি বাতিল করে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করে। যার ফলশ্রæতিতে দেশে রাজনৈতিক সংকটের সৃষ্টি হয়। দেশে-বিদেশে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন ব্যাপকভাবে সমালোচিত এবং প্রশ্নবিদ্ধ হলেও সরকার জনমতের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের পরিবর্তে জোর করে ক্ষমতায় বহাল থাকে। তাদের জবরদখল করে ক্ষমতায় থাকার মেয়াদ সমাপ্তির পথে। সামনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সরকার তার নীল-নকশা অনুযায়ী নির্বাচনের আয়োজন করে পুনরায় ক্ষমতায় আসার লক্ষ্যে বিরোধী রাজনৈতিক দলসমূহকে হয়রানি করছে। মিথ্যা মামলা, গণ-গ্রেফতার চালানো হচ্ছে। এটা কোন অবস্থাতেই নির্বাচনের পরিবেশ নয়। এমতাবস্থায় জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের এক সভা আমীরে জামায়াত মকবুল আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দেশের বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

তিনি আরো বলেন, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে আটদফা দাবি উত্থাপন করেছে, জামায়াতের নির্বাহী পরিষদের পক্ষ থেকে আমি তা জাতির সামনে পেশ করছি অবিলম্বে সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে সরকারের পদত্যাগ ও কেয়ারটেকার সরকার গঠন করতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ