প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঐক্যফ্রন্টের পরিণতি: বলেছিলাম কিনা ‘অনেক শূন্যের যোগফল শূন্য’?

মাসুদ রানা: গত ২৯ অগস্ট এই ফেইসবুকে ‘অনেক শূন্যর যোগফল শূন্য!’ শিরোনামে একটি পোস্টে লিখেছিলামঃ

“বাংলাদেশে বর্তমানে বহুল আলোচিত রাজনৈতিক দেউলিয়াদের ঐক্য হচ্ছে 0+0+0+0+0 = 0 (শূন্য+শূন্য+শূন্য+শূন্য+শূন্য = শূন্য), যার প্রতি জনগণের আস্থাও শূন্য। এই দেউলিয়াদের রাজনৈতিক ক্রেডিবিলিটি শূন্য। তাই তাদের রাজনৈতিক মূল্যও শূন্য। আর, শূন্যের সংখ্যা যতোই হোক না কেন, তার যোগফল শূন্য হতে বাধ্য।”

কামাল হোসেন যুক্তফ্রন্ট থেকে ঐক্যফ্রন্টে বিকশিত হওয়ার কালে ঝরে গেলেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী। বদরুদ্দোজা চৌধুরীর ঝরে যাওয়ার বিষয়টি খুব ভালোভাবে প্রকাশিত হলো তাঁর পুত্র মাহী চৌধুরীর সাথে মাহমুদুর রহমান মান্নার ফৌনালাপ থেকে।

সর্বশেষ, কামাল হোসেন ও জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সাথে মইনুল হোসেনের প্রকাশিত ফৌনালাপ থেকে জানা গেলো মইনুল হোসেন আর ঐক্যফ্রন্টে নেই। কারণ, কামাল হোসেন তাকে বলেছেন যে, তার মামলার সাথে ঐক্যফ্রন্টের কোনো সম্পর্কে নেই।

হতাশ ও ক্ষুব্ধ মইনুল হোসেন টেলিফৌনে কামাল হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কাছে। তাঁকে জানালেন যে, তিনি আর ঐক্যফ্রন্টে নেই। আর বললেন, কামাল হোসেন একটি “কাউয়ার্ড” বা কাপুরুষ।

জাফরুল্লাহ চৌধূরীও মইনুল হোসেনের সাথে সুর মিলিয়ে তার চেয়েও অধিক হারে একই বিশেষণ ব্যবহার করলেন কামাল হোসেনের বিরুদ্ধে। মইনুল হোসেন যেখানে কামাল হোসেনকে একবার “কাওয়ার্ড” বলে নির্দেশ করেছেন, জাফরুল্লাহ বলেছেন তিনবার – “কাওয়ার্ড”, “কাওয়ার্ড, কাওয়ার্ড”।

তার আগে সাংবাদিক রব মজুমদারের সাথে ফোনালাপে এক প্রশ্নের উত্তরে মইনুল হোসেন বিএনপির নেতা তারেক রহমান “কোথাকার ছাগল? এটা গরু, কাউ না মুরগী” বলে নির্দেশ করেন। তিনি আরও দাবি করেন, “আমরা তারেকের নেতৃত্ব ধ্বংস করার জন্যই ডঃ কামালকে আনছি।”

বলাই বাহুল্য, বিএনপির লোকেরা মইনুল হোসেনের উপরের কথাগুলো শোনার পর তার প্রতি এবং কামাল হোসেনের প্রতি বিক্ষুব্ধ হবে এবং কামাল হোসেনকে ঐক্যফ্রণ্টের নেতা হিসেবে অবিশ্বাস করতে শুরু করবে। যুক্তফ্রণ্ট ও বিএনপি মিলে যে ঐক্যফ্রন্ট হয়েছে, তার মাঠে মারা যাওয়ার অবস্থা তৈরি হয়েছে!

পাঠক বুঝুন, আমি যে দুমাস আগে শুরুতেই বলেছিলাম ‘শূন্যের সংখ্যা যতোই হোক না কেন, তার যোগফল শূন্য হতে বাধ্য’, তা সত্যি হতে চলেছে কিনা! ফেসবুক থেকে নেওয়া।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ