প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ড. মিজানুর রহমানের প্রশ্ন, মানুষ মেরে, রাস্তার পাশে লাশ ফেলে ভীতি বা ত্রাস সৃষ্টির ষড়যন্ত্র চলছে?

আশিক রহমান : জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান বলেছেন, সাধারণ মানুষের মৃতদেহ বা লাশ রাস্তার পাশে পাওয়া অনাকাক্সিক্ষত। যেকোনো সমাজ বা রাষ্ট্রের জন্য এটা খুবই উদ্বেগজনক। জাতীয় নির্বাচনের প্রাক্কালে ঘটতে থাকা এসব ঘটনা নতুনমাত্রা যোগ করেছে। যা আমাদেরকে অনেক বেশি দুশ্চিন্তায় ফেলে। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, যাদের লাশ বা মৃতদেহ রাস্তার পাশে, এখানে সেখানে পাওয়া যাচ্ছে তারা যদি সাধারণ মানুষের কেউ হন তাহলে একটা ভীতি বা ত্রাস সৃষ্টির একটা আবহ সৃষ্টি বা ষড়যন্ত্র চলছে। রাজনৈতিক মতাদর্শ বা অন্যকোনো কারণে যদি তাদের নির্মূল বা হত্যা করা হয়ে থাকে, তা ইংগিত দেয় ভিন্ন ধরনের।

তিনি আরও বলেন, যদি এমন হয় যাদের মৃতদেহ পাওয়া যাচ্ছে, নিরাপত্তা বাহিনী বা রাষ্ট্রীয় কোনো সংস্থা যদি হুট করে বলে ফেলেন যে, তারা মাদক ব্যবসা করতো, তারা অপরাধী, তাদের বিরুদ্ধে মামলা আছে, তাহলে আমরা ধরে নিতে পারি এই মৃত্যুর পেছনে রাষ্ট্রের হাত রয়েছে। তারা যতবড় মাদক ব্যবসায়ীই হোক না কেন, এ ধরনে মৃত্যু বা বিচারবহির্ভূত হত্যাকা- সমর্থনযোগ্য নয়। এ কথাটি রাষ্ট্রকে স্মরণ করিয়ে দিতে হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. মিজানুর রহমান বলেন, মৃত্যুগুলোর পেছনের কারণ কী, কে বা কারা ভিকটিম হচ্ছে তার একটা ব্যাখ্যা আমরা দিতেই পারি। কিন্তু এ ধরনের ঘটনা যদি ঘটতেই থাকে তাহলে সামগ্রিকভাবে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের জন্য কল্যাণকর নয়। এটা কোনো শান্তির বাণীও বহন করে না। এ ব্যাপারে রাষ্ট্র ও সরকারকে সাংঘাতিকভাবে তৎপরত থাকতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ