প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আসামে সন্দেহভাজন ৬৪ জন বাংলাদেশি আটক

বিডি-প্রতিদিন : আসামের গোলাঘাট থেকে ৬৪ জন সন্দেহভাজন বাংলাদেশি নাগরিককে আটক করেছে ভারতের পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সকালে আসামের গোলাঘাট এলাকায় তাদের প্রথমে আটক করে ‘অল তাই অহম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন’ (আটাসু) এবং ‘অল অসম ছুটিয়া স্টুডেন্টস ইউনিয়ন’ (আকসু)-এর সদস্যরা। এরপর তাদের কামারগাঁও পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। আপাতত সেখানেই তাদের দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশের কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, নাগরিকত্ব আইন সংশোধনী বিল বাতিলের দাবিতে এদিন রাজ্য জুড়ে হরতালের ডাক দেয় ৪৬ টি সংগঠনের যৌথ মঞ্চ। এদিন, সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ গোলাঘাট এলাকায় ৩৭ নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিল ওই দুইটি সংগঠনের সদস্যরা। ঠিক তখনই ওই সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় সন্দেহ হওয়ায় তাদের পথ আটকানো হয়।

আকসুর বোকাখাট ইউনিটের সম্পাদক লচিত কাকোতি জানান ‘হরতাল চলাকালীন সময়ে কামারগাঁও এলাকায় আমরা ও আটাসুর সদস্যরা দুইটি যাত্রীবাহী ট্রাককে থামাই। এরপর ওই ট্রাকে যাত্রীদের ঠিকানা ও পেশা সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই আসল ঘটনা বেরিয়ে আসে। তাদের অধিকাংশই বিভিন্ন উত্তর দিতে থাকে। ফলে তাদের প্রকৃত পরিচয় সম্পর্কে আমাদের মনে সন্দেহ জাগে, তাদের কথাবার্তায় বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী বলেও সন্দেহ হয়। স্বাভাবিক কারণেই কামারগাঁও থানায় একটি এফআইআর দায়ের করি এবং তাদের পুলিশের হাতে হস্তান্তর করি।’

কাকোতি আরও জানান ‘ওই মানুষগুলোকে সন্দেহের বাইরে রাখা যাচ্ছে না এবং ভারত-বাংলাদেশ অরক্ষিত সীমানা দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে এই অবৈধ অনুপ্রবেশকারীরা এরাজ্যে অবাধে ঘোরাঘুরি করছে।’

গোলাঘাট পুলিশ সুপার মানবেন্দ্র দেব রাই জানান ‘আটক ৬৪ জন ব্যক্তির পরিচয় ও নাগরিকত্ব যাচাই করে দেখা হচ্ছে। যেহেতু ওই মানুষগুলি বিহারের কাটিহার থেকে আসছিল ফলে তাদের কয়েকজনের কাছে ভারতীয় আধার কার্ড পাওয়া গেছে। কিন্তু বিহার রাজ্যের প্রশাসনের সাথে কথা বলে ওই কার্ড আসল কিনা তা যাচাইয়ের চেষ্টা করা হচ্ছে।’

তিনি আরও জানান ‘তাদের নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য তিন দিন সময় দেওয়া হয়েছে এর মধ্যে না যথাযথ প্রমাণ দিতে না পারলে আইন অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ