প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আকার বাড়ছে ১৪ দলীয় জোটের

সমীরণ রায়: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। এতে করে দলগুলো ভিন্ন ভিন্ন নামে জোটবদ্ধ হচ্ছে। যদিও ১৪দল বা মহাজোট এবং ২০ দল নামে দুটি বড় জোট রয়েছে। একটি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল বা মহাজোট। অপরটি বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। সম্প্রতি বিএনপির সঙ্গে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়া জোট করেছে। এই জোটের নাম দেওয়া হয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তবে নবগঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আমলে না নিয়ে ঘর গোছাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

এরই প্রেক্ষিতে ১৪দলীয় জোটের আকারও বাড়তে পারে। তবে এই জোটে বাম প্রগতিশীল ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি এমন কোনো দল যুক্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটে বাম প্রগতিশীল ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি এবং ইসলামিধারার কয়েকটি রাজনৈতিক দল শরিক হতে পারে। তবে নির্বাচনী জোট, আদর্শিক জোট নাকি ১৪ দলীয় জোট হবে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে এই জোট একসঙ্গে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে এটি স্পষ্ট হবে।

আওয়ামী লীগ নেতারা মনে করেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে ১৪ দলে যাদের ভেড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে, তাদের অনেকেরই ভোটের হিসাবে প্রভাব নেই। দলগুলোর মূল নেতৃত্ব যারা রয়েছেন তারা রাজনীতিতে পরিচিত মুখ। ফলে তাদের মুখগুলো আর কিছু না হোক ভোটারদের আকৃষ্ট করবে। তাছাড়া বেশিরভাগ দল আওয়ামী লীগের সঙ্গে রয়েছে বলেও মানুষের মধ্যে একটা নাড়া দেবে।

জানা গেছে, কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) ও ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি) শিগগিরই ১৪ দলের সঙ্গে নির্বাচনী জোট করতে পারে। এছাড়া তৃণমূল বিএনপি ও ইসলামী ফ্রন্টেরও নির্বাচনী জোটে যোগ দেওয়ার বিষয়টি অনেকটা নিশ্চিত। এদিকে, হেফাজতে ইসলামের সঙ্গেও সমঝোতা চলছে। তবে তাদের সঙ্গে নির্বাচনী জোট না হলেও ১৪ দলকে সমর্থন করবে বলে মনে করেন ক্ষমতাসীনরা।

অন্যদিকে, ১৪ দলে বাম গণতান্ত্রিক জোট ও ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার নেতৃত্বের জোটসহ অন্যরাও তফসিল ঘোষণার আগে নির্বাচনী জোট করতে পারে। লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ ও বামদলগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আর দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম ছোট ছোট এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ ইসলামি দলগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আওয়ামী লীগের শীর্ষ এক নেতা জানান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে এক বৈঠকে কাদের সিদ্দিকী দলে ফিরতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তাকে দলে ফেরানোর বিষয়ে কারো কারো আপত্তি রয়েছে। তবে তিনি নির্বাচনী জোটে যোগ দেবেন এটা নিশ্চিত। সম্পাদনা: হুমায়ুন কবির খোকন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত