প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কলড্রপ উদ্বেগজনক পর্যায়ে, ১৩ মাসে মোবাইল কলড্রপ ২২২ কোটি বার

হ্যাপি আক্তার : বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গত ১৩ মাসে মোবাইল ফোনের গ্রাহকেরা ২২২ কোটিবার, কথার মাঝে কল কেটে যাওয়া বা কল কলড্রপের শিকার হয়েছেন। কলড্রপের বিপরীতে টকটাইম ফেরত দিতেও গাফিলতি করছে অপারেটরগুলো। বিটিআরসি’র তথ্য পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গত মাসে গ্রামীণফোন প্রায় ৬০ ভাগ টকটাইম ফেরত দেয়নি, রবির এই হার ৬৬ ও বাংলালিংকের ৭১। টিআরসি চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, কলড্রপ কিছুটা কমলেও তা এখনো উদ্বেগজনক পর্যায়ে।

মোবাইল কোম্পানিগুলোর কাছে কলড্রপের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার কারণে গ্রাহক অসন্তুষ্টির কথা জানিয়ে ব্যাখ্যা চেয়েছে বিটিআরসি।

বিটিআরসি’র ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশনস, পরিচালক মো. গোলাম রাজ্জাক স্বাক্ষরিত ওই চিঠি সোমবার (২৩ অক্টোবর) মোবাইল কোম্পানিগুলোর কাছে পাঠানো হয়।

বিটিআরসি’র চিঠিতে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে কলড্রপ-সংক্রান্ত অভিযোগ অব্যাহতভাবে বাড়ছে। কলড্রপের পরিমাণ বিটিআরসি’র নির্ধারিত সীমার (২ শতাংশ) মধ্যে থাকা আবশ্যক। অপারেটরদের জমা দেওয়া প্রতিবেদনে কলড্রপ  নির্ধারিত সীমার মধ্যে রয়েছে দাবি করলেও গ্রাহক পর্যায়ে অনেক অভিযোগ আছে। এ ছাড়া কোনো কোনো অপারেটরের নেটওয়ার্কে একটি কলে চার থেকে পাঁচবার কলড্রপ হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

বিটিআরসি’র হিসাবে, গত সেপ্টেম্বরে চার মোবাইল অপারেটরে ড্রপ হয়েছে প্রায় ১৮ কোটি কল। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় গ্রামীণ ও বাংলালিংকের কলড্রপ কিছুটা কমলেও বেড়েছে রবি’র।

অনেক গ্রাহকের অভিযোগ, ড্রপ হওয়া কলের বিপরীতে টকটাইম ফেরত পাচ্ছেন না তারা। বিটিআরসি’র তথ্য পর্যালোচনায় দেখা গেছে, টকটাইম ফেরত দেওয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলালিংক। বিটিআরসি’র নিয়মে, দিনে একবারের বেশি কলড্রপ হলে টকটাইম ফেরত পাবেন গ্রাহক। এসএমসের মাধ্যমে গ্রাহককে জানানোর নিয়ম থাকলেও তা মানা হচ্ছে না।

মোবাইল অপারেটররা বলছে, মূল্য বেশি হওয়ায় পর্যাপ্ত তরঙ্গ কিনতে পারছেন না তারা। কম তরঙ্গে বেশি গ্রাহককে সেবা দিতে গিয়ে কলড্রপ হচ্ছে।

বিটিআরসি বলছে, কলড্রপ নিয়ে নিয়মিত অভিযোগ পাচ্ছেন তারা। তরঙ্গের দাম আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে নির্ধারণ সম্ভব বলেও জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

যে হারে কলড্রপ হয় তার তুলনায় বিটিআরসিতে লিখিত অভিযোগ জমা পড়ে সামান্যই। কলড্রপের বিষয়ে সোমবারের মধ্যে অপারেটরগুলোকে ব্যাখ্যা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বিটিআরসি। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত