প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে : সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম

আশিক রহমান : শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেছেন, ২০১৪ সালের মতো একই ভুল করবে না সরকার, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে। ২০১৪ সালের নির্বাচনে যে সমস্যাটি হয়েছে, ১৫৩টি আসনে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতাই হয়নি, এবার সেটি থাকবে না, সবগুলো আসনেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করলে দেখা যাবে যে দলটির পুরোনো অনেক নেতা হয়তো নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। সরকার যদি চেষ্টা করে তাহলে হয়তো সফল হবে কিছু মানুষকে নির্বাচনে নিয়ে আসতে। বিএনপি যদি নির্বাচনে না আসে সরকার প্রমাণ করতে সক্ষম হবে, আমরা তো সব দরজা খুলে দিয়েছিলাম। তারা আসেনি, আমাদের আর কী করার থাকে। হয়তো সমালোচনা হবে। তবে বিএনপির ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত আমি।

এক প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনে বিএনপি না এলে অপ্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়তো চার-পাঁচটা আসনে থাকতে পারে। হয়তো প্রধানমন্ত্রী আসনে কেউ থাকবে না। তবে এবার একটু ভিন্নভাবে নির্বাচন হবে। যদি বিএনপি নির্বাচনে না-ও আসে দেখা যাবে খুব সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হচ্ছে। কারণ তখন তো শক্তিশালী কোনো প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী থাকবে না। এমনটি হলে বিএনপির সমর্থকদেরও অনেকে ভোট দিতে যাবেন না, বিরক্ত হবেন। রাগ করবেন। কিন্তু মানুষের এখন এত সময় নেই রাজনীতির পেছনে দৌঁড়ানোর। নির্বাচনে বিএনপি না এলে তৃতীয়শক্তি রাষ্ট্রক্ষমতায় আসার কোনো সম্ভাবনা আমি দেখি না। আমার মনে হয় না, বাংলাদেশে আর তৃতীয়শক্তি রাষ্ট্রক্ষমতায় আসবে। তিনি বলেন, বৈশ্বিক পরিস্থিতি এখন যেরকম তাতে বাংলাদেশে এসে বিদেশি দাতা সংস্থা, বিশ্বব্যাংক বা বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত রাজনৈতিক নসিহত করবে সেই সম্ভাবনা এখন খুবই কম। বাংলাদেশ আগের অবস্থানে এখন আর নেই। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থান এতটা সামনে চলে এসেছে যে এখানে কোনো অস্থিতিশীলতা তৈরি করতে চাইবে না দেশগুলো।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে এই রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, আওয়ামী লীগ ভালো প্রার্থী নির্বাচন বা বাছাইয়ের দিকে মনোযোগ দিয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতিসহ নানা অভিযোগ রয়েছে তাদের বাদ দিয়ে তরুণদের মনোনয়ন দেবে বলে ধারণা আমার। এতে তরুণদের অংশগ্রহণ বেশি হবে এবারের নির্বাচনে। তিনি বলেন, কওমী মাদ্রাসার মাস্টার্স ডিগ্রির স্বীকৃতি ভোটের রাজনীতিতে ক্ষমতাসীনদের উপকারে আসতে পারে। কারণ আমি বায়তুল মোকাররম এলাকায় তাদের বলতে শুনেছি যে, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে যদি কোনো চক্রান্ত হয় আমরা সেটা রুখবো। এটা যে শুধু মুখের কথা নয়। তাদের সমর্থন হয়তো বিএনপি নিতে চায়, হয়তো একটা অংশ সেই সমর্থনটা দেবে। কিন্তু আরেকটা অংশ সমর্থন দেবে প্রধানমন্ত্রীকে ভবিষ্যতে আর কী দেনদরবার রয়েছে তা মাথায় রেখে। নির্বাচনে তাদের কোনো প্রার্থী দেখা গেলেও আমি অবাক হবো না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ