প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুড়িগ্রামের মানহানী মামলাতেও মইনুলকে আগাম জামিন

এস এম নূর মোহাম্মদ : টেলিভিশন টকশোতে আমাদের নতুন সময়ের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাসূদা ভাট্টিকে কটূক্তি করার অভিযোগে কুড়িগ্রামে দায়ের করা মানহানির মামলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের বেঞ্চ তার জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে ২১ অক্টোবর কুড়িগ্রাম চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঁচ হাজার কোটি টাকার মানহানির ওই মামলা দায়ের করেন অ্যাডভোকেট মাকসুদা বেগম বেবি। দ-বিধির ৫০৪/৫০৫ ও ৫০৯ ধারায় মানহানির মালাটি করা হয়। তবে এর আগে ২১ অক্টোবর ঢাকায় এবং জামালপুরে করা পৃথক মানহানী মামলায় হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নিয়েছেন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। তবে ওই জামিন স্থগিত চেয়ে আজ আপিল করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।

এদিকে সোমবার জামিন শুনানিতে খন্দকার মাহবুব হোসেন আদালতে বলেন, এসব মানহানির মামলায় সংক্ষুব্ধ ব্যাক্তিকে বাদি হতে হয়। অন্য কেউ এ মামলা করতে পারে না। এরইমধ্যে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি মামলা করেছেন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, যেভাবে একটার পর একটা মামলা হচ্ছে, তাই মামলার বিষয়ে আদালতকে বলতে হবে। আজকে হাজার হাজার লোক হাইকোর্টে। অ্যাটর্নি জেনারেল রাষ্ট্রের হয়ে দায়িত্ব পালন করলে এত লোককে কোর্টে আসতে হতো না। আমরা মনে করি আদালত আমাদের শেষ জায়গা।
তবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এ বক্তব্য পুরো নারী সমাজ ক্ষুব্ধ হয়েছে। তাই যে কেউ চাইলে সংক্ষুব্ধ হয়ে মামলা করতে পারে। এসময় ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, মইনুল হোসেন বারের সাবেক সভাপতি। তিনি জামিন না পেলে আর কে জামিন পাবে। আর অ্যাটর্নি জেনারেল এসেছেন এ মামলায়। এতেই বুঝা যায় এটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

এসময় আদালত বলেন, আমরা আইনের বাইরে কোন আদেশ দিব না। সবারই উচিৎ সবার প্রতি সহনশীল হওয়া। তাহলে এত সমস্যার উদ্ভব হয়না। যখন অন্যের অমঙ্গল করবেন, তখন নিজেরও অমঙ্গল হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ