প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘নিজেরা কথা বলতে পারলে বিদেশি বন্ধুদের দরকার হবে না’

আশিক রহমান : আমরা নিজেরা নিজেরা কথা বললে বাইরের মানুষের সঙ্গে কথা বলার প্রয়োজন পড়বে না বলে মনে করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক ও সাবেক রাষ্ট্রদূত এম. হুমায়ুন কবির। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, নিজেদের মধ্যে কথা বলে যেকোনো সমস্যা নিরসন উত্তম ব্যবস্থা। এটা নিশ্চিত করতে পারলে আমাদের বিদেশি বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলা দরকার পড়বে না। যেসব দেশে নিজেদের মধ্যে কথা বলার পদ্ধতি বন্ধ বা সংকীর্ণ অবস্থায় থাকে তখনই বাইরের বন্ধুরা পরামর্শ দিতে আসেন। কিন্তু তা গ্রহণ করা হয়, না হয় সেটি ভিন্ন কথা। আমাদের নিজেদের মধ্যেকার আলোচনার সংস্কৃতি চালু কথা থাকা উচিত।

তিনি আরও বলেন, গণতান্ত্রিকভাবে যেসব দেশ শক্তিশালী ও অর্থনৈতিকভাবে উন্নত তারা এই চর্চাটা করে। এই চর্চাটা আমাদেরও করতে হবে যদি সবাইকে নিয়ে বাংলাদেশকে শক্তিশালী করতে চাই। প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তিশালী করতে চাই। গণতন্ত্র, রাজনীতি, অর্থনীতি, সামাজিক সবকিছুতে সবার অংশগ্রহণমূলক ব্যবস্থা যদি দাঁড় করানো যায় আলোপ-আলোচনার মধ্যদিয়ে তা অনেক শক্তিশালী ও টেকসই হবে এবং আমরাও তখন আত্মসম্মান নিয়ে বাঁচতে পারবো।

এক প্রশ্নের জবাবে হুমায়ুন কবির বলেন, দারিদ্র্যবিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া শক্তিশালীকরণ, মধ্য আয়ের বাংলাদেশ আমাদের প্রত্যাশা। যেহেতু প্রত্যাশাগুলো আমাদের, প্রধান কাজটা আমাদেরই করতে হবে। ফলে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আলোপ-আলোচনার মধ্যদিয়ে যদি কাজগুলো করতে পারি, বিদেশি বন্ধুদের কাছ থেকে প্রয়োজন অনুযায়ী আমরা সহযোগিতা চাইতে পারি। সেক্ষেত্রে আমরা কী সহযোগিতা চাইবো, কি চাইবো না সেই সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা থাকবে আমাদের কাছে। এমন একটি ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে পারলে স্বপ্রণোদিত হয়ে আমাদের পরামর্শ দেওয়ার সুযোগটা তৈরি হবে না বিদেশিদের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ