প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আপিল করবে রাষ্ট্রপক্ষ

ভোরের কাগজ : সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টির মানহানির মামলায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মানাহানির দুই মামলায় ৫ মাসের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল রবিবার এ আদেশ দেন। তবে এই আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল করবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা। এর আগে মইনুলের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন পৃথক দুই আদালত।

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন এডভোকেট জয়নুল আবেদীন। সঙ্গে ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন ও ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রাফি আহমেদ। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যার্টনি জেনারেল এম মাসুদ চৌধুরী ও স্বপন দাস।

৭১ টেলিভিশনে গত ১৬ অক্টোবর রাত ১২টার দিকে মিথিলা ফারজানা উপস্থাপিত ‘৭১ এর জার্নাল’ টক শোতে অধিকার কর্মী ও সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন ব্যারিস্টার ওয়ার-ইলেভেন’ খ্যাত তত্ত্বাবধায়ক সরকারে উপদেষ্টা মইনুল হোসেন। পরে ওই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে গতকাল রবিবার ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূরের আদালতে মাসুদা ভাট্টি বাদী হয়ে মামলা করেন। ওই মামলায় ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে গেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। পাশাপাশি মঈনুলের একই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে রবিবার সকালে তার বিরুদ্ধে জামালপুরের আদালতে ২০ হাজার কোটি টাকা মানহানির মামলা করেন যুব মহিলা লীগের জামালপুর শাখার আহ্বায়ক ফারজানা ইয়াসমীন লিটা। আদালত সে মামলা আমলে নিয়ে ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। এই দুই মামলায়ই আগাম জামিন পান মইনুল।

জামিন পাওয়ার পর মইনুল হোসেন বলেন, আমি একটি জাতীয় ঘটনার সম্মুখীন হয়েছি। জামায়াতের এজেন্ট বলে আমাকে অত্যন্ত অপমান করা হয়েছে। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আর কিছু বলব না। আদেশের পর এডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগে জামালপুর ও ঢাকায় দুটি মামলা হয়েছে। এ দুই মামলায় হাইকোর্টে জামিন আবেদন করলে আদালত ৫ মাসের আগাম জামিন মঞ্জুর করেন। তিনি বলেন, একাত্তর টেলিভিশনের টক শোতে তিনি একটি মন্তব্য করেছিলেন। সেই কারণে তার বিরুদ্ধে দুটি মামলা করা হয়েছে। ওই মন্তব্যের জন্য ফোন করে মইনুল হোসেন ক্ষমা চেয়েছেন, লিখিতভাবেই স্যরি বলেছেন। তারপরও তিনি মামলা করেছেন, যা আমরা আশা করিনি। এ ছাড়া জামালপুরে যিনি মামলাটি করেছেন তিনি যুব মহিলা লীগের সদস্য। তা হলে বুঝা যায়, এর পেছনে একটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে। যার কাছে ক্ষমা চাইলাম তিনিও মামলা করলেন, এটা দুঃখজনক। সে কারণেই মইনুল হোসেন হাইকোর্টে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। সংশ্লিষ্ট আদালতের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রাফি আহমেদ বলেন, জামিন আবেদনের বিরোধিতা সত্ত্বেও আদালত তাকে (মইনুল হোসেন) জামিন দিয়েছেন। আমরা হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করব।

গত ১৬ অক্টোবর বেসরকারি টেলিভিশন একাত্তরের সংবাদপত্র নিয়ে আলোচনার অনুষ্ঠান ‘একাত্তর জার্নালে’ অংশ নেন মাসুদা ভাট্টি। সেই অনুষ্ঠানে লাইভে যোগ দেন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। তার তিন দিন আগে ড. কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া, বিএনপি, নাগরিক ঐক্য ও জেএসডিকে নিয়ে গঠন করা জাতীয় ঐক্যে যোগ দেন সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলের উপদেষ্টা মইনুল। ইতোপূর্বে জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র শিবিরের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সংগঠনটির প্রশংসা করে মইনুল হোসেন। তার বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার প্রসঙ্গ ধরে মাসুদা ভাট্টি মইনুলের কাছে জানতে চান, তিনি জামায়াতের প্রতিনিধি হয়ে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছেন কিনা? আর এতে উত্তেজিত হয়ে মইনুল বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই।’

এই বক্তব্যের পর তীব্র সমালোচনা শুরু হলে মইনুল হোসেন ফোন করে মাসুদা ভাট্টির কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েও একে ভুল বোঝাবুঝি বলেন। এ ঘটনায় মইনুল হোসেনকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে গত শনিবার বিবৃতি দেন বিভিন্ন গণমাধ্যমের ১০১ সম্পাদক ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক।

অপরদিকে, জামালপুরেও মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার পর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়। যুব মহিলা লীগ স্থানীয় কমিটির আহ্বায়ক ফারজানা ইয়াসমিন লিটা ২০ হাজার কোটি টাকার মামলা করার পর এই আদেশ জারি করেন মুখ্য বিচারিক হাকিম সোলায়মান কবির।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ