প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুবরাজের নির্দেশেই হত্যা করা হয়েছে খাসোগজিকে
খাসোগজি হত্যার অপর ব্যাখ্যা হাজির সৌদির

নূর মাজিদ ও ওমর শাহ : প্রায় তিন সপ্তাহব্যাপী ভিন্নমতালম্বী সৌদি সাংবাদিক খাসোগজি হত্যার সকল দায় এড়িয়ে বিবৃতি দিয়েছে সৌদি আরব। তবে দেশটির রক্ষাকর্তা বলে পরিচিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদদের তীব্র চাপের মুখে গত শুক্রবার এই হত্যার দায় স্বীকার করে সৌদি আরব। দেশটির রাষ্ট্রায়াত্ত এল আখবরিয়া চ্যানেলের সংবাদ বুলেটিনে বলা হয়, ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে দেশটির কূটনীতিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে সৃষ্ট হাতাহাতির এক পর্যায়ে উত্তেজিত দূতাবাস কর্মকর্তারা তাকে হত্যা করে। এই বিষয়ে গত শনিবার আরেকটি ভিন্ন ব্যাখ্যা হাজির করেছে সৌদি আরব। শনিবার দেশটি জানায়, কর্মকর্তাদের সঙ্গে মুষ্টিযুদ্ধের পর খাসোগজিকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে। ইতোপূর্বে সৌদি আরবের ব্যাখ্যা নিয়ে অসন্তুস্ট হয় মার্কিন কংগ্রেস। এরপর কংগ্রেস সদস্যদের চাপের মুখে প্রেসিডেন্ট ট্রা¤প সৌদি আরবকে আরও বিস্তারিত এবং গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা দেয়ার আহ্বান জানান। এরপরই সৌদি আরব খাসোগজি হত্যাকাণ্ডের সাম্প্রতিক ব্যাখ্যা দিল।

শনিবারের ব্যাখ্যাটি এসেছে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সৌদি কর্মকর্তার কাছ থেকে। তিনি হত্যার পর খাসোগজির লাশ টুকরো টুকরো করার তুর্কি গোয়েন্দাদের দেয়া বিবরণের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। তিনি বলেন, টুকরো টুকরো করে নয় বরং শ্বাসরোধ করে হত্যার পর কার্পেটে মুড়িয়ে তার মৃতদেহ স্থানীয় এক সহযোগীর কাছে হস্তান্তর করেছে সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তারা। সৌদি আরবের পক্ষ থেকে খাসোগজিকে হত্যার দায় স্বীকার করার পর তার লাশ কোথায় এই বিষয়ে সৌদি আরবের কাছে পরিষ্কার ব্যাখ্যা চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এরপরই এসব তথ্য জানিয়েছে আরব দেশটি।

এদিকে খাসোগজি হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে বহিষ্কৃত গোয়েন্দা প্রধান জেনারেল আসিরি সৌদি যুবরাজের মৌখিক অনুমতি নিয়েই খাসোগজিকে হত্যা পরিকল্পনা করেছেন বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক টাইমস। গতকাল রোববার মার্কিন দৈনিকটি একটি বিশ্বস্ত গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানায়। ইতোপূর্বে, নিজের বিশ্বস্ত গোয়েন্দা প্রধান আসিরির ঘাড়ে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার দায় চাপিয়ে তাকে চাকরিচ্যুত করেন সৌদি যুবরাজ বিন সালমান। এমনকি এই ঘটনায় তার বিশস্ত উপদেষ্টা কাহতানিকেও বরখাস্ত করেন তিনি। ইতোপূর্বে সিএনএন প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি যুবরাজের ওপর থেকে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারীর দায় সরিয়ে দিতেই মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও’র পরামর্শ অনুযায়ী বেশ কিছু সৌদি কর্মকর্তাকে বহিষ্কারের পরিকল্পনা করছে রিয়াদ। যাদের মধ্যে আল আসিরি অন্যতম।

এদিকে খাসোগজি হত্যাকাণ্ডের তথ্য সমগ্র বিশ্ববাসীকে জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে তুরস্ক। দেশটির ক্ষমতাসীন দল জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির একেপির মানবাধিকার শাখার ডেপুটি চেয়ারম্যান নুমান কুরতুলমুশের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এপি এমন কথা জানিয়েছে। গত শনিবার কুরতুলমুশ বলেন, সৌদি আরব এই হত্যার দায় এড়িয়ে পালাতে পারবেনা। সম্পূর্ণ তদন্তের প্রতিবেদন ও প্রমাণাদি আমরা বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরব। খাসোগজি হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচনে তুর্কি গোয়েন্দাদের তদন্ত প্রায় শেষ পর্যায়ে বলেই জানান তিনি। এসময় তিনি বলেন, ধস্তাধস্তিতে খাসোগজি মারা গেছেন বলে সৌদি আরব যে ব্যাখ্যা দিয়েছে তা সঠিক নয়। ‘খাসোগজি ধস্তাধস্তিতে মারা যাওয়ার বক্তব্যটি সঠিক নয়। তাদের আরও আগেই সঠিক ঘটনাটি প্রকাশ করা উচিত ছিল।’

খাসোগজি পরিকল্পিতভাবেই হত্যা করা হয়েছে বলে ইঙ্গিত দেন এই কর্মকর্তা। তিনি বলেন, তুর্কি কর্তৃপক্ষ, প্রসিকিউটর, ফরেনসিক কর্মকর্তারা তদন্তের বিষয়ে কিছু উপসংহারে পৌঁছেছেন।
আরটি, বিবিসি, নিউ ইয়র্ক টাইমস, এনডিটিভি, হুরিয়াত ডেইলি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ