প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভিড় বাড়ছে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে

কায়েস চৌধুরী : বিজ্ঞানের অজানাকে জানতে এবং নিত্য নতুন বিজ্ঞানকে শিখতে দিনে দিনে দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়ছে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে। শহর কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ, সুযোগ পেলেই একবার ঘুরে দেখছে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এই প্রতিষ্ঠানটি। কর্মকর্তারা বলছেন, আগতদের বেশিরভাগই বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী।

সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৯৮৫ সালে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে প্রতিষ্ঠিত হয় জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর। শুরুর দিকে কেবল প্রযুক্তিতে আগ্রহীরা আসলেও সময়ের পরিক্রমায় সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ আসতে থাকে। শুরুর দিকে যেখানে হাতে গোণা কয়েকজন মানুষ আসতো সরকারের প্রচারণা ও আধুনিকায়নের ফলে এখন প্রতিদিন গড়ে ৫’শ জনের বেশি দর্শনার্থী মিলে। আর বিভিন্ন উৎসবে থাকে বাড়তি ভিড়।

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক স্বপন কুমার রায় বলেন, বর্তামানে আগের চেয়ে দর্শনার্থীর সংখ্যা বেড়েছে। তবে বেশিরভাগই শিক্ষার্থীরা আসছে। পল্লী অঞ্চলের প্রত্যন্ত এলাকার শিক্ষার্থীরাও শিক্ষা সফরে আসছে। ‘তারাও’ শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দিয়ে থাকেন। সঠিক তথ্য জানানোর জন্য গাইডের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সহায়তা দেন। বর্তমানে বছরে প্রায় ৩০ হাজার দর্শনার্থী আসলেও কর্তৃপক্ষ বার্ষিক ১ লাখ ২০ হাজার দর্শনার্থী আনার জন্য লক্ষমাত্র নির্ধারণ করেছে।

জাদুঘর ঘুরে দেখা যায়, ৪তলা বিশিষ্ট জাদুঘরটির ১ম ও ২য় তলায় রয়েছে গ্যালারি। এর মধ্যে রয়েছে সায়েন্স, ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি, বায়োলজি , ইনফরমেশন টেকনোলজি, ফান সায়েন্স এবং ইয়ং সায়েন্টিস্ট প্রোজেক্ট গ্যালারি। এছাড়াও রয়েছে ৭টি আলাদা গ্যালরি। যেখানে দর্শনার্থীরা মজার বিজ্ঞান, তথ্য-প্রযুক্তি, জীববিজ্ঞান, মহাকাশ বিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান, শিল্প-প্রযুক্তি, শিশু গ্যালারতে দর্শকরা নানা প্রদর্শনী দেখতে পান। ৩য় তলায় অফিস এবং ৪র্থ তলায় বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি অবস্থিত।
জাদুঘরটি সপ্তাহের রবিবার থেকে বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা থকে। এছাড়া শুক্রবার দুপুর আড়াইটা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত এবং শনিবার সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকে। বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক বন্ধ।
সাধারণের জন্য টিকিট মূল্য ১০ টাকা এবং গ্রুপ শিক্ষার্থীদের জন্য ৫ টাকা। প্রতি শুক্র ও শনিবার সন্ধ্যায় এক ঘণ্টা টেলিস্কোপের মাধ্যমে আকাশ পর্যবেক্ষণ করানো হয়। যেখানে শনি, বৃহস্পতি, মঙ্গল, শুক্র গ্রহ দেখা যায়। এ ছাড়া সেখানে রয়েছে একটি সমৃদ্ধ লাইব্রেরি। যেখানে ৭ হাজার বিজ্ঞান বিষয়ক বই আছে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে আসতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রি পরিবহনের ব্যবস্থা করবে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর কর্তৃপক্ষ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ