Skip to main content

কোরআন তেলাওয়াতের আদব

আমিন মুনশি : পবিত্র কোরআন শরিফ মুসলমানদের জীবন বিধান। কোরআন শরিফ এমন এক গুরুত্বপূর্ণ কিতাব, এর বিশুদ্ধ তেলাওয়াত ছাড়া নামাজ হয় না। সূরা ফাতেহাসহ কমপক্ষে পাঁচটি সূরা নামাজিদের ভালোভাবে মুখস্থ থাকতে হয়। কোরআনের অর্থ না বুঝে পড়লেও প্রতি হরফের বিনিময়ে দশটি করে নেকি পাওয়া যায়। যেমন- কেউ যদি শুধু ‘আলিফ-লাম-মীম’ তেলাওয়াত করে, এই তিনটি হরফের বিনিময়ে তার আমলনামায় ৩০টি নেকি লেখা হয়। তেলাওয়াতের আদব হলোঃ ১. পাক-পবিত্র হয়ে পরিচ্ছন্ন স্থানে কেবলামুখী হয়ে বসা। ২. নিজেকে আল্লাহর সামনে তুচ্ছজ্ঞান করা। ৩. আউজুবিল্লাহ বিসমিল্লাহ পড়ে তেলাওয়াত শুরু করা। ৪. ধীরে ধীরে চিন্তা-ফিকির এবং তারতিলের সঙ্গে তেলাওয়াত করা। ৫. রহমতের আয়াতের বেলায় প্রফুল্ল হয়ে দোয়া করা এবং আল্লাহর কাছে নিজের জন্য রহমত প্রার্থনা করা। ৬. শাস্তির আয়াতের বেলায় পানাহ চাওয়া। ৭. আগ্রহ-উদ্দীপনার সঙ্গে যে পরিমাণ তেলাওয়াত করা সম্ভব হয় সে পরিমাণ তেলাওয়াত করা। ৮. যেখানে মানুষ নিজ নিজ কাজে মশগুল থাকে সেখানে তেলাওয়াত না করা। ৯. তেলাওয়াতকালে দুনিয়াবি কাজে মশগুল না হওয়া। ১০. তেলাওয়াতের পর বিনয় ও নম্রতার সঙ্গে দোয়া করা। ১১. তেলাওয়াত অবস্থায় যদি কোনো প্রয়োজনীয় কাজের সম্মুখীন হয় তাহলে কোরআন বন্ধ করে ওই কাজে মনোনিবেশ করা। ১২. তেলাওয়াতের মাঝখানে কারও সম্মানার্থে না দাঁড়ানো। ১৩. কোরআনের হরফ ও শব্দ সহিহ-শুদ্ধভাবে আদায় করা। কেননা ভুল পড়ার দ্বারা মারাত্মক গুনাহ হয়। তাই কোনো কারির কাছ থেকে সহিহ করে নেওয়া উচিত।