প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাহীসহ তার পিতা বহুবার এসেছেন আমাদের বাসায়, আমরাও বহুবার গিয়েছি তাদের বাসায় : শামীম সাঈদী

খন্দকার আলমগীর হোসাইন : মাহী বি. চৌধুরী আমাকে চেনেন কি চেনেন না, সেটা তিনি-ই ভালো বলতে পারবেন। তবে আমি তাকে চিনি খুব ভালো করে। তার পিতা আমাদের সোবহানবাগ বাসায় বহুবার এসেছেন। তাদের মগবাজার ও বারিধারাার বাসায় আমরা বহুবার গিয়েছি। সাবেক রাষ্ট্রপতি বি চৌধুরী আমাকে স্নেহ করেন। আমি তাদের শ্রদ্ধা করি। তবে তার উচ্চতা এবং অবস্থান আমি এবং এ দেশের জনগণ খুব ভালো করেই জানে এবং বোঝেন। মাহীদের সমসাময়িক রাজনৈতিক এ খরার মধ্যেও তাদের অহমিকাবোধ কমেনি। ইম্যাচিউর একটা উচ্চতায় দাঁড় করিয়ে নিজেদের যে জায়গায় মাহীরা দেখেতে পছন্দ করেন, জনগণ কিন্তু তা মোটেও পছন্দ করেন না। গতকাল ভাইরাল হওয়া মাহী বি. চৌধুরী ও শামীম সাঈদীর একটা ছবি নিয়ে বক্তব্যের জবাবে জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর পুত্র শামীম সাঈদী এসব কথা বলেন।

সাঈদীপুত্র শামীম সাঈদী আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সাবেক রাষ্ট্রপতি বি চৌধুরীর ছেলে মাহি বি চৌধুরীর সঙ্গে আমার একটি ছবি ভাইরাল হয়। ভাইরাল হওয়া ছবিটি গতকালই আমার নজরে আসে। নজরে আসার পর ছবিটি নিয়ে ভালো-খারাপ কোন মন্তব্য কিংবা ফিলিংস কোনটাই তৈরী হয়নি আমার। বরং বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে কট্টর বিরোধী দল বা মতাদর্শের ব্যক্তিদের সাথে একই মঞ্চে কিংবা একই জায়গায় দাঁড়িয়ে অনেক বড় মাপের ব্যক্তিদেরও অহরহই যুগল ছবি থাকে বা আছে। নেট সার্চ করলেই এরকম অসংখ্য বিপরীতধর্মী লোকদের যুগল ছবি অহরহই পাওয়া যায়। বলা যায়, এটা একটা কমন সৌজন্যতা বোধ ছাড়া আর কিছুই নয়। ছবিটা আমার কাছে নিতান্তই সাধারণ এবং সেরকমই মনে হয়েছে। কবে কখন ছবিটা উঠেছে এটা মনে করতেও আমার কিছুটা সময় লেগেছে। হঠাৎ করেই অনেক আগের তোলা এই ছবিটা কে বা কারা ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছেন। এটাও আমার কাছে একেবারেই একটা স্বাভাবিক ব্যাপার ছাড়া আর কিছুই মনে হয়নি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ