প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকার বরাদ্দ দিচ্ছে কিন্তু উন্নয়ন হচ্ছে না: দুদক কমিশনার আমিনুল ইসলাম

সৌরভ কুমার ঘোষ, কুড়িগ্রাম: দেশের জিডিপির আড়াই শতাংশ খেয়ে ফেলছে দুর্নীতিবাজরা এমন মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম।

আজ রোববার সকালে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে প্রতিরোধ করার আহ্বান জানান।

দুদকের এ কমিশনার বলেন, সরকার দেশের উন্নয়নে হাজার হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছে কিন্তু উন্নয়ন সে তুলনায় হচ্ছেনা। সকল প্রকল্পের উন্নয়ন এবং মাঠ পর্যায়ের প্রকৃত অবস্থা জানা এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠি কেমন সেবা পাচ্ছে সেটা শোনার জন্য ভূরুঙ্গামারীতে দুদকের ১০১তম গণ শুনানির আয়োজন করা হয়েছে। সারাদেশে ২৫ হাজার ৩’শ ৭১ টি সততা সংঘ এবং এক হাজার ৫’শ ৪৪টি সততা স্টোর চালু করা হয়েছে। দুদক কমিশনার জানান তাঁরা প্রতিরোধ ও প্রতিকারমূলক দু’ধরনের কাজ করে থাকেন।

গণশুনানি মূলত প্রতিরোধমূলক কাজ। গণশুনানির উদ্দেশ্য হচ্ছে সেবা প্রত্যাশী নাগরিকদের অভিযোগ সরাসরি শুনে তা সম্পাদনের ব্যবস্থা, সেবার মান উন্নয়ন, সেবা গ্রহণ ও প্রদানকারীদের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি এবং এবিষয়ে একটি সুপারিশ মালা তৈরী করা।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক (প্রতিরোধ) মনিরুজ্জামান, পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম, রাজশাহী আঞ্চলিক দুদক কার্যালয়ের পরিচালক আব্দুল করিম, উপজেলা চেয়ারম্যান নূরুন্নবী চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাগফুরুল হাসান আব্বাসী।

পরে জেলা প্রশাসকের সঞ্চালনায় অভিযোগকারী এবং অভিযুক্তদের বক্তব্য শুনে দুদক কমিশনার বিষয়গুলোর তাৎক্ষণিক সমাধানের ব্যবস্থা করেন এবং ফলোআপের নির্দেশনা প্রদান করেন।

গণশুনানিতে ঘুষ গ্রহনের দায়ে সেটেলমেন্ট অফিসের সার্ভেয়ার গোলাম মর্তুজাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।
শুনানিতে অন্যান্যের মধ্যে দুদক আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক শেখ ফানাফিল্যা, কুড়িগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আমিনুল ইসলামসহ দুদকের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ