প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আপনার সন্তান ‘দুষ্টু’ নাকি মানসিক সমস্যাগ্রস্ত!

অনলাইন ডেস্ক: শিশুদের সার্বক্ষনিক দুষ্টামী স্বাভাবিক নয়। তার প্রতিনিয়ত রাগান্বিত বা আক্রমণাত্মক আচরণ সহ্য করা বাবা-ম ‘র জন্য অসহনীয় হয়ে উঠে। শিক্ষকদের জন্যও তা সুখকর হয় না। তাদের আবেগের বহিঃপ্রকাশ যদি বাড়ির বাইরে হয় তাহলে এর পরিণতি ওই শিশুর জন্য আরও গুরুতর হতে পারে।

কিভাবে বুঝবেন যে আপনার শিশু কেবল ‘দুষ্টু’ নাকি তার অস্থির আচরণের পেছনে মানসিক অসুস্থতাই মূল কারণ। যুক্তরাজ্যের মেন্টাল হেলথ ফাউন্ডেসন শিশুদের চেচামেচি করা প্রসঙ্গে ব্যাখ্যা দিতে সম্প্রতি ১০ থেকে ১৫ বছর বয়সী এক হাজার ৩২৩ জনের ওপর জরিপ পরিচালনা করে।

সেখান থেকে জানা যায় যে, শিশুদের আচরণ তখনই পরিবর্তন হয় যখন তারা দুশ্চিন্তা বা মন খারাপের মধ্য দিয়ে যেতে থাকে।

জরিপে অংশগ্রহণকারী এক চতুর্থাংশের দাবি যে তারা যখন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে বা মন খারাপ থাকে তখন তারা মারামারি বা ঝগড়াঝাঁটিতে জড়িয়ে পড়ে।

বাকি আরও এক চতুর্থাংশ বলেছে মানসিক চাপে থাকলে তাদের হোমওয়ার্ক করাটা অনেক কঠিন হয়ে যায়।

সেখানে থেকে আরও জানা যায়, “যেসব শিশু সহজেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। তাদের জন্য যেকোনো নতুন, অপরিচিত, কঠিন বা চাপযুক্ত জায়গা সম্ভাব্য হুমকি হিসাবে বিবেচিত হবে।”

“যখন শিশুরা মানসিক চাপে থাকে বা কোন হুমকি অনুভব করে। তখন তাদের শরীরে প্রচুর পরিমাণে হরমোন এবং অ্যাড্রেনালিনের সৃষ্টি হয়। যার কারণে তাদের শরীর শক্তিশালী, দ্রুতগামী ও ক্ষমতাবান হয়ে ওঠে এবং তারা তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখায়। এবং এই প্রতিক্রিয়া একপর্যায়ে প্রাকৃতিকভাবেই মিলিয়ে যায়।”

এতে সহজেই বোঝা যায় যে, অল্প বয়সীদের মানসিক উদ্বিগ্নতা কিভাবে খেলার মাঠের হাতাহাতি অথবা রাগের বিস্ফোরণে পরিণত হতে পারে। সূত্র: বিবিসি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ